লকডাউনে সমস্ত গ্রাহক কেন ফ্রি সুবিধা পাচ্ছেনা? টেলিকম কোম্পানিদের কাছে জানতে চাইলো ট্রাই

Trai

করোনা ভাইরাসের কারণে লকডাউন চলায় সবাই এখন ঘরবন্দি। আর তাই গ্রাহকদের রিচার্জ থেকে স্বস্তি দিতে কয়েকটি অফারের ঘোষণা করেছিল BSNL, Reliance Jio, Vodafone এবং Airtel । এই অফারে কোম্পানিগুলো গ্রাহকদের ভ্যালিডিটি বাড়ানো ছাড়াও আরও কিছু সুবিধা দিচ্ছিল। তবে এই সুবিধা সমস্ত গ্রাহকদের জন্য আনা হয়নি। আর সেকারণেই টেলিকম রেগুলেটরি অথরিটি অফ ইন্ডিয়া (ট্রাই) সমস্ত কোম্পানির কাছে জানতে চেয়েছে, কেন এই সুবিধা সবাই পাবেনা। সবাই এখন অসুবিধার সম্মুখীন, সুতরাং সমস্ত প্রিপেড গ্রাহকদের এই সুবিধা পাওয়া উচিত।

সমস্যায় 2G গ্রাহকরা :

আসলে জিও, ভোডাফোন-আইডিয়া ও এয়ারটেল তাদের ইচ্ছানুযায়ী এই সুবিধা গ্রাহকদের দিচ্ছে। ট্রাই এবিষয়ে আপত্তি জানিয়ে বলেছে যে, লকডাউন চলাকালীন সকল গ্রাহকের অসুবিধাহীন পরিষেবা পাওয়া উচিত । ট্রাই ৭ এপ্রিল এয়ারটেলকে একটি ইমেলের মাধ্যমে জানিয়েছে যে, কোম্পানি গ্রাহককে তার ইচ্ছানুযায়ী মেয়াদ বাড়ানো এবং ১০ টাকার ক্রেডিট দেওয়ার চেষ্টা করছে এবং এতে সমস্ত টুজি গ্রাহকরা অন্তর্ভুক্ত নয়। ফলে সমস্যায় পড়েছে গ্রাহকরা।

সমস্ত গ্রাহককে পরিষেবা দেওয়ার জন্য অনুরোধ :

ট্রাই সমস্ত টেলিকম কোম্পানি কে এই বিষয়ে নিশ্চিত হতে বলেছে, যাতে সমস্ত গ্রাহক এই লকডাউনের সময় বিনা বাধায় পরিষেবা পায়। ট্রাই ভোডাফোনকে পাঠানো ইমেলও একই ধরণের কথা বলেছে। আবার রিলায়েন্স জিও কে পাঠানো ইমেলে ট্রাই বলেছে, আপনারা সমস্ত গ্রাহকের বিষয়ে বিবেচনা করুন। আপনারা সেইসমস্ত গ্রাহক কে ১০০ মিনিট কল ও ১০০ মিনিট এসএমএস এর সুবিধা দিচ্ছেন, যাদের ভ্যালিডিটি শেষ। আবার যাদের ভ্যালিডিটি থাকছে তাদের এই অফারের আওতায় আনছেন না।

প্রসঙ্গত কদিন আগে রিলায়েন্স জিও জানিয়েছিল তারা ১৭ এপ্রিল পর্যন্ত জিও ফোন গ্রাহকদের ভ্যালিডিটি বাড়িয়ে দিয়েছে। সাথে কোম্পানি ১০০ মিনিট কল ও ১০০ মিনিট এসএমএস এর সুবিধা দেবে বলে জানিয়েছিল। এদিকে ভোডাফোন ও এয়ারটেল জানিয়েছিল তারা ফিচার ফোন ও কম রিচার্জ করা ব্যক্তিদের ১৭ এপ্রিল পর্যন্ত ভ্যালিডিটি বাড়িয়ে দেবে। সাথে ১০ টাকা টকটাইম দেবে।