৩ মে পর্যন্ত বাড়তে পারে ভ্যালিডিটি, টেলিকম কোম্পানিগুলিকে ফের চিঠি পাঠালো ট্রাই

trai-sent-letters-to-the-telecom-companies-to-extend-validity-till-3-may

লকডাউনের এর কারণে মোবাইল রিচার্জ না করতে পারা কোটি কোটি গ্রাহকের জন্য সুখবর আসতে পারে। কারণ ট্রাই চাইছে সমস্ত টেলিকম কোম্পানি তাদের প্ল্যানের ভ্যালিডিটি ৩ মে পর্যন্ত বাড়িয়ে দিক। অর্থাৎ ট্রাই চেষ্টা করছে যাতে গ্রাহকদের লকডাউনের মধ্যে রিচার্জ না করতে হয়। যদি টেলিকম কোম্পানি ট্রাইয়ের এই প্রস্তাব মেনে নেয় তাহলে কোটি কোটি গ্রাহক উপকৃত হবেন।

মঙ্গলবার ট্রাই চিঠি পাঠিয়েছে :

মঙ্গলবার এয়ারটেল, জিও, ভোডাফোন আইডিয়া, বিএসএনএল এবং এমটিএনএলকে একটি চিঠি পাঠিয়েছে নিয়ন্ত্রক। এই চিঠিতে ট্রাই সেইসমস্ত প্রিপেড গ্রাহকদের সংখ্যা জানতে চেয়েছে যাদের কোম্পানিগুলি ২১ দিনের লকডাউনে ভ্যালিডিটি বাড়িয়ে দিয়েছিলো এবং ওই গ্রাহক ১৩ এপ্রিল রাত পর্যন্ত নিজে থেকে রিচার্জ করেনি। পাশাপাশি ট্রাই জানতে চেয়েছে কোন কোন গ্রাহক কে ইমার্জেন্সি টকটাইম দেওয়া হয়েছিল।

ভ্যালিডিটি বাড়িয়েছে টেলিকম কোম্পানিগুলি :

BSNL প্রিপেড গ্রাহকদের ২০ এপ্রিল পর্যন্ত ভ্যালিডিটি বাড়ানোর কথা ঘোষণা করেছিল। শুধু তাই নয়, বিএসএনএল গ্রাহকদের ১০ টাকা ব্যালান্স দেওয়া হবে বলেও জানানো হয়েছিল। এই ব্যালেন্স গ্রাহকরা কল বা এসএমএস পাঠিয়ে খরচ করতে পারে।

Vodafone-Idea অফার :

ভোডাফোন-আইডিয়া সমস্ত প্রিপেড প্ল্যানের বৈধতা ১৭ এপ্রিল ২০২০ পর্যন্ত বাড়িয়ে দেওয়ায় সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। এই সুবিধা পাবে কোম্পানির লাখ লাখ ফিচার ফোন ব্যবহারকারী। এর ফলে রিচার্জ না করলেও গ্রাহকরা ইনকামিং কলের সুবিধা ভোগ করবে। এছাড়াও ১০ কোটি ফিচার ফোন ব্যবহারকারীর অ্যাকাউন্টে ১০ টাকা টকটাইম দেওয়া হবে। যা কল ও এসএমএস এর জন্য ব্যবহার করতে পারবে গ্রাহকরা। 

Jio অফার :

লকডাউনের সময় রিলায়েন্স জিও ও তাদের গ্রাহকদের জন্য বিশেষ অফার নিয়ে এসেছিল। এই অফার কোম্পানি জিও ফোন গ্রাহকদের জন্য এনেছিল। এই অফারে JioPhone গ্রাহকরা আগামী ১৭ এপ্রিল পর্যন্ত ১০০ মিনিট কল করার জন্য এবং ১০০ এসএমএস পাবে। এছাড়াও জিওফোন গ্রাহকরা রিচার্জের ভ্যালিডিটি শেষ হয়ে গেলেও ১৭ এপ্রিল পর্যন্ত ইনকামিং কলের সুবিধা পাবে।

Airtel অফার :

তাদের গ্রাহকদের জন্য ১০ টাকা টকটাইম দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছিল। শুধু তাই নয়, কোম্পানি তাদের গ্রাহকদের নম্বরের ভ্যালিডিটি ১৭ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়িয়ে দিয়েছিলো। মনে রাখবেন এয়ারটেল সেই ৮ কোটি গ্রাহকদের এই সুবিধা দিয়েছে, যারা খুব কম রিচার্জ করে বা যারা সবসময় ভ্যালিডিটি বাড়ানোর জন্য রিচার্জ করে থাকেন।