আপনার ফোন কি স্লো হয়ে যাচ্ছে ? ডাউনলোড করুন এই অ্যাপ

বর্তমানে অ্যান্ড্রয়েড সব থেকে বেশি জনপ্রিয় এবং ব্যবহৃত মোবাইল অপারেটিং সিস্টেম। তাই এর জন্য বর্তমানে সব থেকে বেশি অ্যাপ্লিকেশান ও গেম তৈরি হচ্ছে।আমরা কেউ কেউ বর্তমানে আমাদের ফোনে ১০০ বা তার বেশি অ্যাপ্লিকেশান ব্যবহার করি । কিন্তু সেগুলো ব্যবহার হয়ে গেলে বা আমাদের আর প্রয়োজন না থাকলে আমরা আনইন্সটল করতে ভুলে যাই।

উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেম এর মতো অ্যান্ড্রয়েড এও অনেক অ্যাপ্লিকেশান ব্যাকগ্রাউন্ডে চলতে থাকে। তাই এগুলো ব্যাটারি ও ফোনের কর্মক্ষমতাকে নষ্ট করতে শুরু করে। এটা আটকাবার জন্যে আমাদের সেই সমস্ত অ্যাপ্লিকেশান অবশ্যই আনইন্সটল করে দিতে হবে যেগুলো আমরা খুব কম ব্যবহার করি। এছাড়াও নিয়মিত জ্যাঙ্ক ফাইল ও ক্যাচে ফাইল স্টোরেজ স্টোরেজ খালি করে রাখা উচিত। আলাদা আলাদা ভাবে এই ফাইল রিমুভ করা আমাদের কাছে ক্লান্তিকর হতে পারে তাই আমরা বিভিন্ন অপটিমাইজেশন অ্যাপ্লিকেশান ব্যবহার করি ।

1) Power Clean:- পাওয়ার ক্লিন গুগল প্লে স্টোরের একটি ভীষণ জনপ্রিয় ক্লিনিং অ্যাপ্লিকেশান । এটি খুব ফার্স্ট স্মার্ট এবং ইউজার ফ্রেন্ডলি। এতে আছে এডভান্সড জ্যাঙ্ক ক্লিনার, অ্যাপ্লিকেশান আনইনস্টলার ইত্যাদি

2) SD maid:- এটি অন্য একটি জনপ্রিয় অ্যাপ্লিকেশান। এতেও অনেকগুলো ফিচার্স আছে। এর মধ্যে সব থেকে দরকারি হলো এটি বেশ কিছু মিনি টুল প্রোভাইড করে। এটি জ্যাঙ্ক ফাইল এর সাথে সাথে ডুপ্লিকেট ফাইল ও ডিলিট করতে পারে।

3) Droid Optimizer:- Droid optimizer দারুন বিশ্বাসযোগ্য একটি অ্যাপ্লিকেশান। প্লে স্টোরে এই অ্যাপ্লিকেশানটির বিবরণে লেখা আছে যে এটি বাতিল অপ্রয়োজনীয় ফাইল থেকে ফোন কে ফ্রি করে। এবং ফোনের জায়গা ও এর গতি বৃদ্ধি করে। এছাড়াও এটি ইন্টারনেট ব্রাউজিং হিস্ট্রি মুছতেও সাহায্য করে।

4) Norton clean junk removal:- যদি ব্যবহারকারী এমন একটি অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশান খুঁজছেন যেটা একই সাথে জ্যাঙ্ক ফাইল রিমুভ করবে,ডুপ্লিকেট ফাইল রিমুভ করবে তাহলে এই
অ্যাপ্লিকেশানটি ভীষণ দরকারি। এর সাহায্যে খুব চটজলদি বিভিন্ন ধরনের ফাইলকে বেছে আলাদা করা যায় এবং ব্লটওয়ার ও আলাদা করা যায়।

5) All In One Toolbar :-. এটির যেরকম নাম সেরকমই এটি একটি একগুচ্ছ টুলস নিয়ে তৈরি একটি টুল বক্স। এর সাহায্যে ব্যবহারকারী সিস্টেম এবং অ্যাপ্লিকেশান ক্যাচে ফাইল ডিলিট করতে পারবে। বিভিন্ন ব্যাকগ্রাউন্ড প্রসেস কে মনিটরিং করতে পারবে । ওয়াই ফাই সিস্টেম কে ব্যবহার করতে পারবে । এছাড়াও এর মধ্যে আছে একটি ফাইল ম্যানেজার, সি পি ইউ কুলার ও ব্যাটারি সেভার।

6) 360 security light:- যদি ব্যবহারকারী একটি হাল্কা ,লাইট অপ্টিমাইজার অ্যাপ্লিকেশান এর খোঁজে থাকে তাহলে এটি তার জন্য বেস্ট অ্যাপ্লিকেশান । এটি জায়গা নেয় মোটে ১০ এম.বি. । এটুকু জায়গাতেই একে ইন্সটল করা সম্ভব। এবং সাইজে ছোট বলে এটি ফেলনা নয়। এর মধ্যে বাই ডিফল্ট আছে দুর্ধষ সব ফিচার্স যেমন ফোন বুস্টার, গেম বুস্টার, অ্যাপ্লিকেশান লকার , এন্টিভাইরাস ইত্যাদি।

7) The Cleaner :-. এটি আরেকটি নির্ভরযোগ্য অ্যাপ্লিকেশান যা ব্যবহারকারীর ফোনে গতি প্রদান করতে সক্ষম । এর ফিচার্স গুলি হলো জ্যাঙ্ক ফাইল ক্লিনার, অবসলেট অ্যাপ্লিকেশান রিমুভার ইত্যাদি।

8) Cleaner:- এটি একটি ভীষণ সুন্দর অপ্টিমাইজিং অ্যাপ্লিকেশান । যদি ব্যবহারকারী বেশ কিছুদিন যাবৎ অ্যান্ড্রয়েড ফোন ব্যবহার করেন তাহলে তিনি অবশ্যই জানবেন এর কথা। অন্যান্য সব ফিচার্স গুলি এর মধ্যে আছে। এছাড়াও এটি RAM পরিষ্কার রাখে ফোন কে স্লোও হতে দেয় না।

পড়ুন : কোন অ্যাপ আপনার ফোনকে স্লো করছে, কিভাবে বুঝবেন

সব খবর পড়তে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হোন – এখানে ক্লিক করুন

সব খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে যুক্ত হোন – এখানে ক্লিক করুন

Last Updated on