Truecaller 12: ফোন করলে ভিডিও চলবে, পড়ে শোনাবে কে কল করছে! ট্রুকলার আনল নতুন আপডেট

Truecaller 12 আপডেটে জুড়লো Video Caller ID, Ghost Call, Call Announce সহ পাঁচটি নতুন ফিচার

truecaller-12-android-update-video-caller-id-call-recording-ghost-announce-top-5-features

জনপ্রিয় কলার আইডি অনুসন্ধানকারী স্মার্টফোন অ্যাপ্লিকেশন Truecaller, একগুচ্ছ নতুন ফিচারের সাথে অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপের ১২তম ভার্সন লঞ্চ করল। নবাগত এই ফিচারগুলির মধ্যে অন্যতম হল ‘ভিডিও কলার আইডি’ (Video Caller ID)। এটি ব্যবহার করে ইউজাররা শর্ট ভিডিও সেট করতে পারবেন, যা বন্ধু-বান্ধব বা পরিজনদের ফোন করার সময়ে তাদের ডিভাইস স্ক্রিনে ভেসে উঠবে। আবার, ‘কল রেকর্ডিং’ (Call Recording) ফিচারের সাহায্যে ফোনের বার্তালাপকে করা যাবে স্টোরেজ-বন্দি। এছাড়া, Truecaller 12 আপডেটে নতুন UI বা ইউজার ইন্টারফেসেরও দেখা মিলবে, যা স্বতন্ত্র কলিং ও মেসেজিং ট্যাব সহ এসেছে। তদুপরি, প্রিমিয়াম ও গোল্ড মেম্বারদের জন্য বিশেষ ভাবে ‘ঘোস্ট কল’ (Ghost Call) এবং কল অ্যানাউন্স (Call Announce) ফিচার আনয়ন করা হয়েছে। উক্ত ফিচার-দ্বয়ের কার্যকারিতা এগুলির নামের মতোই ‘ইউনিক’। আসুন ৫টি ফিচারের প্রসঙ্গে বিশদে জেনে নেওয়া যাক

Truecaller 12 এল এই ৫টি নিতুন ফিচারের সাথে

Video caller ID : ট্রুকলারে আসা এই নয়া আপডেটের দরুন ইউজাররা এখন ভিডিও কলিং আইডি তৈরী করতে পারবেন। এই ভিডিও, ভয়েস কল করার সময়ে মোবাইলের কন্টাক্ট লিস্টে থাকা ব্যক্তিদের মধ্যে যারা ট্রুকলার অ্যাপ ব্যবহার করেন শুধুমাত্র তাদের কাছেই দৃশ্যমান হবে। ভিডিও কলিং আইডি সেট করার জন্য আপনারা নিজের রেকর্ড করা একটি শর্ট সেলফি ভিডিও আপলোড করতে পারেন। অথবা অ্যাপে থাকা টেম্পলেটগুলির থেকে যেকোনো একটি বেছে নিতে পারেন, যা মূলত জেনেরিক টাইপ ভিডিও।

Call recording : ২০১৮ সালে প্রথম কল রেকর্ডিং ফিচার চালু করেছিল ট্রুকলার। কিন্তু তৎকালীন সময়ে শুধুমাত্র পেইড মেম্বাররাই এই ফিচার ব্যবহার করতে পারতেন। তবে সম্প্রতি এটিকে বিটা টেস্টের জন্য লঞ্চ করা হয়। আর এখন, সদ্য লঞ্চ হওয়া ১২তম সংস্করণে কল রেকর্ডিং ফিচারকে, পেইড এবং নন-পেইড প্রত্যেক ইউজারের জন্য উপলব্ধ করে দেওয়া হয়েছে। তবে, খেয়াল রাখবেন, ফোনে যদি অ্যান্ড্রয়েড ৫.১ বা আরো উন্নততর ওএস ভার্সন না থাকে, তবে কল রেকর্ডিং ফিচার ব্যবহার করা যাবে না।

ট্রুকলার ব্যবহার করে কল রেকর্ডিং করা হলে, তা ডিফল্ট ভাবে ডিভাইসের ইন্টারনাল মেমরিতে সেভ হয়ে যাবে। ইউজাররা চাইলে এই রেকর্ডিংগুলি ই-মেল বা যেকোনো মেসেজিং অ্যাপ ব্যবহার করে শেয়ার করতে পারবেন। জানিয়ে রাখি, এটি একটি অপশনাল ফিচার। ফলে, কল রেকর্ডিং অপশনকে ম্যানুয়ালি অ্যাক্টিভ করতে হবে ইউজারদের। এর জন্য আপনাকে প্রথমেই – অ্যাপের বাম দিকে থাকা ড্রপ-ডাউন ‘Settings’ বক্স ওপেন করতে হবে। তারপর, ‘Accessibility’ অপশনে ট্যাপ করতে হবে। এবার, স্ক্রিনের উপরে থাকা ‘record’ বাটনে ট্যাপ করার মাধ্যমে আপনারা কল রেকর্ড করতে পারবেন। ইনকামিং এবং আউট-গোয়িং উভয় কলিংয়ের ক্ষেত্রেই ফিচারটি কাজ করবে।
(Settings > Accessibility>record button)

User interface (UI) : অ্যাপের ইউআই বা ইউজার ইন্টারফেসের ক্ষেত্রেও নতুনত্ব আনা হয়েছে। এই নয়া আপডেটে, কলিং এবং মেসেজিং ট্যাবকে পৃথক করে দেওয়া হয়েছে৷ যার দরুন অ্যাপটি দেখতে আরো পরিচ্ছন্ন লাগবে। আর একই সাথে, কলিং লিস্ট ও মেসেজিং সেকশনকে (ট্রুকলার মেসেজ, গ্রূপ চ্যাট, ডিরেক্ট মেসেজ) ট্যাব সুইচ করার মাধ্যমে সহজে অ্যাক্সেস করা যাবে, এমনটাই প্রেস রিলিজে দাবি করেছে সুইডেন ভিত্তিক সংস্থাটি।

Call Announce : নামকরণের ধাঁচ দেখে আশা করি বুঝতে পারছেন যে, এটি রিড-অ্যালাউড ফিচারের ন্যায় কাজ করবে। সহজ ভাষায় বললে, ট্রুকলার, মোবাইল কন্টাক্টে সেভ থাকা নম্বর বা অচেনা নম্বরের কলার আইডি ডেটাবেস চিহ্নিত করবে এবং ইনকামিং কলের তথ্যাদি অডিও রূপে জানাবে ইউজারকে। ফলে, ব্যস্ত রাস্তায় বা গাড়ি চালানোর সময়ে ফোন এলে ইউজার সেটি রিসিভ করবেন নাকি কেটে দেবেন, তা নির্ণয় করতে এই নয়া ফিচারটি বিশেষভাবে সাহায্য করবে। সুতরাং, কার্যকারিতার দিক থেকে এটি অনেকটা আইফোনের সিরি ভয়েস অ্যাসিস্ট্যান্টের অনুরূপ। প্রসঙ্গত, হেডফোন ব্যবহার করলেও কল অ্যানাউন্স ফিচার সমান ভাবে কাজ করবে।

Ghost calls : কোনো অনাহুত পরিস্থিতি থেকে বেরিয়ে আসতে বা বন্ধুদের সাথে নির্ভেজাল প্র্যাঙ্ক করতে চাইলে আপনারা ঘোস্ট কল ফিচার ব্যবহার করতে পারবেন। ট্রুকলার কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, উক্ত ফিচারটি এনাবল করার মাধ্যমে ফেক কল শিডিউল করতে পারবেন ইউজাররা। সেক্ষেত্রে, ইচ্ছামত নাম, নম্বর এবং প্রোফাইল পিকচার সেট করার মাধ্যমে অ্যাপে ফেক কলিং আইডি তৈরী করা সম্ভব। আপনারা চাইলে ফোনের কন্টাক্ট লিস্টে থাকা পরিচিত কোনো ব্যক্তিকেও বেছে নিতে পারবেন ফেক আইডি বানানোর জন্য।

উল্লেখ্য, ঘোস্ট কলিং এবং কল অ্যানাউন্স – উভয় ফিচারই কেবল মাত্র প্রিমিয়াম ও গোল্ড মেম্বারদের জন্য উপলব্ধ। সেক্ষেত্রে, আপনারা যারা ট্রুকলারের প্রিমিয়াম প্যাক কিনতে চান, তারা ৫২৯ টাকার বার্ষিক প্যাকেজ অথবা তিন মাস মেয়াদের ১৭৯ টাকার প্ল্যান কিনতে পারেন। এছাড়া, গোল্ড মেম্বারশিপ কিনতে হলে ২,৫০০ টাকার একটি প্যাক আছে, যা এক বছরের জন্য ভ্যালিড থাকবে।

ট্রুকলার জানিয়েছে, উপরি উল্লেখিত ৫টি ফিচারকে আগামী সপ্তাহের মধ্যেই রোল আউট করা হবে। যদিও, কিছু ফিচার ইতিমধ্যেই বিটা ভার্সনে অ্যাক্সেস করার জন্য উপলব্ধ। ট্রুকলারের ১২তম সংস্করণ, অ্যান্ড্রয়েড ফোনে সাপোর্ট করলেও, আইওএস (iOS) ফোনে কতদিনে উক্ত ফিচারগুলির সুবিধা পাওয়া যাবে, সেই তথ্য এখনো অধরা।

বিশ্বব্যাপী ৩০০ মিলিয়ন অ্যাক্টিভ ইউজারের মাইলস্টোন পেরোলো Truecaller

ট্রুকলার কর্তৃপক্ষ সম্প্রতি ঘোষণা করেছিল যে, বিশ্বব্যাপী ৩০০ মিলিয়ন মাসিক সক্রিয় ইউজার তাদের এই অ্যাপ ব্যবহার করছে। যার মধ্যে ২২০ মিলিয়ন ইউজারই ভারতীয়। একই সাথে, এসএমএস পরিষেবার জন্য এই অ্যাপটি ১৫ কোটিরও বেশি সংখ্যক মানুষ ব্যবহার করছেন বলেও দাবি করছে সংস্থাটি।

শুভেচ্ছা বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী। তিনি একদিকে যেমন ফটোগ্রাফার, তেমনি পাশাপাশি লেখিকাও। এছাড়াও তার শখের মধ্যে আছে বই পড়া, গান গাওয়া, ছবি আঁকা এবং ওয়েব ডিজাইন। শুভেচ্ছা আমাদের টেকগাপ পরিবারের একজন নতুন সদস্য।