Homeটেলিভিশনচীনা প্রোডাক্ট থেকে মুখ ফেরাচ্ছে মানুষ, মেড ইন ইন্ডিয়া TV ও TWS ইয়ারবাডসের চাহিদা উর্ধ্বমুখী

চীনা প্রোডাক্ট থেকে মুখ ফেরাচ্ছে মানুষ, মেড ইন ইন্ডিয়া TV ও TWS ইয়ারবাডসের চাহিদা উর্ধ্বমুখী

মূলত ফেস্টিভ সিজন চলাকালীন একাধিক নতুন মডেল লঞ্চ করা এবং একই সাথে নতুন তথা বিদ্যমান একাধিক টিভিকে ই-কমার্স সাইট ও রিটেল স্টোরগুলির মাধ্যমে ব্যাপক ডিসকাউন্ট, অফার সহ বিক্রি করার মার্কেটিং স্ট্র্যাটেজির দৌলতেই 'মেড ইন ইন্ডিয়া' টেলিভিশনের শিপমেন্ট সূচক এরূপ আকস্মিক উর্দ্ধমুখী হয়েছে বলে দাবি করেছে 'কাউন্টারপয়েন্ট'

২০২২ সালের তৃতীয় ত্রৈমাসিকে (Q3) অর্থাৎ জুলাই থেকে সেপ্টেম্বরের মধ্যে ‘মেড ইন ইন্ডিয়া’ স্মার্ট টিভির শিপমেন্টে (কোয়ার্টার-অন-কোয়ার্টার) ৩৩% বৃদ্ধি লক্ষ করা গেছে। এক্ষেত্রে উল্লেখিত ত্রৈমাসিকে ভারতের মাটিতে নির্মিত টিভির মোট চালান বৃদ্ধি পেয়ে ৫ মিলিয়ন ইউনিটে পৌঁছেছে। মূলত ফেস্টিভ সিজন চলাকালীন একাধিক নতুন মডেল লঞ্চ করা এবং একই সাথে নতুন তথা বিদ্যমান একাধিক টিভিকে ই-কমার্স সাইট ও রিটেল স্টোরগুলির মাধ্যমে ব্যাপক ডিসকাউন্ট, অফার সহ বিক্রি করার মার্কেটিং স্ট্র্যাটেজির দৌলতেই ‘মেড ইন ইন্ডিয়া’ টেলিভিশনের শিপমেন্ট সূচক এরূপ আকস্মিক উর্দ্ধমুখী হয়েছে বলে দাবি করেছে ‘কাউন্টারপয়েন্ট’ (Counterpoint)। মার্কেট রিসার্চার ফার্মটি তাদের সাম্প্রতিক রিপোর্টে আরো জানিয়েছে যে, এই একই ত্রৈমাসিকে ট্রুলি-ওয়্যারলেস-স্টেরিও বা TWS ইয়ারবাডসের শিপমেন্ট সর্বাধিক ছিল, যার ৩৭% ডিভাইসই ছিল স্থানীয়ভাবে উৎপাদিত।

২০২২ সালের তৃতীয় ত্রৈমাসিকে মেড ইন ইন্ডিয়া টেলিভিশনের শিপমেন্ট উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে

এই বিষয়ে মার্কেট বিশ্লেষক প্রাচির সিং বলেছেন, “২০২২ সালের তৃতীয় কোয়ার্টারে স্থানীয়ভাবে নির্মিত টেলিভিশন শিপমেন্টের ক্ষেত্রে মোট পাঁচটি ম্যানুফ্যাকচারিং সংস্থা ৫৫% এরও বেশি শেয়ার দখল করেছে।” এছাড়া – স্মার্টওয়াচ, ট্রুলি ওয়্যারলেস স্টেরিও (TWS) অডিও ডিভাইস, ট্যাবলেট এবং নেকব্যান্ডের মতো প্রডাক্টের ক্ষেত্রেও এই সময়ে স্থানীয় উৎপাদনের চাহিদা চোখে পড়ার মতো ছিল।

কাউন্টারপয়েন্টের এক বিশ্লেষক, প্রিয়া জোসেফের মন্তব্যেও ভারতে নির্মিত পণ্যের চাহিদার কথা উঠে এসেছে। তিনি জানিয়েছেন যে, “মেড-ইন-ইন্ডিয়া স্কিমের অধীনে, স্মার্টফোন ছাড়াও বর্তমানে – অডিও, ওয়্যারেবল এবং EV বা ইলেক্ট্রনিক্স যানবাহনের মতো পণ্যকে স্থানীয়ভাবে উৎপাদন করার চেষ্টা করা হচ্ছে।” মূলত, ভারতকে গ্লোবাল ভ্যালু চেইনের একটি অন্যতম অংশীদার করতেই এইসকল প্রচেষ্টা। এমনকি এই ফিল্ডে সাফল্য পাওয়ার জন্য সেমিকন্ডাক্টর ম্যানুফ্যাকচারিং শুরু করার কথাও শোনা গেছে। যার জন্য গুজরাটের মতো বহু রাজ্য ইতিমধ্যেই তাদের নিজস্ব সেমিকন্ডাক্টর পলিসি নিয়ে এসেছে। এছাড়া বিদ্যমান কিছু পলিসি সংস্কার এবং পরিবর্তন করার কাজও শুরু করে দেওয়া হয়েছে। উদাহরণস্বরূপ – কর্ণাটকের শ্রম এবং ভূমি সংস্কার নীতির কথা উল্লেখ করা যেতে পারে।

প্রসঙ্গত ভারত সরকার ‘মেড ইন ইন্ডিয়া’ স্কিমের অধীনে দেশে স্থানীয় উৎপাদন বাড়াতে নির্মাতাদের উৎসাহ দিচ্ছে। আর এই স্কিমের সাথে একাধিক সংস্থা ইতিমধ্যেই যুক্ত হয়েছে। ফলে ভবিষ্যতে মেড ইন ইন্ডিয়া ইলেকট্রনিক গ্যাজেটের শিপমেন্ট আরো অধিক পরিমাণ বৃদ্ধি পাবে বলেও বিশ্বাস রাখছে কেন্দ্রীয় সরকার৷

আরও পড়ুন