চোরকেই পাহারার দায়িত্ব, টুইটারের সুরক্ষার দায়িত্বে নামকরা হ্যাকার Mudge

চোরকেই যদি পাহারাদারের দায়িত্ব দেওয়া হয়, তাহলে কি হতে পারে ভেবে দেখেছেন কখনো? সোশ্যাল মিডিয়া সাইট টুইটার এবার তেমন ই করতে চলেছে। টুইটারে সুরক্ষা নিয়ে কিছু গুরুতর সমস্যা দেখা দিচ্ছিল বেশ কিছুদিন ধরেই। সেজন্য এবার Twitter কর্তৃপক্ষ এই সাইটের সুরক্ষার দায়িত্ব তুলে দিচ্ছে বিশ্বের নামকরা হ্যাকারদের হাতে! চমকপ্রদ ঘটনা হলেও এটি আসলে প্রকৃত বুদ্ধিমানের কাজ। সাধারণ প্রযুক্তিবিদরা একটি সাইটের সুরক্ষা বিষয়ে যতটা জানে, একজন হ্যাকারকে তার চেয়ে অনেক বেশি জানতে হয়। ফলে হ্যাকারদের হাতে সুরক্ষার ভার তুলে দিলে সুরক্ষার ত্রুটিগুলি তারা আরো ভালো ভাবে নির্দেশ করতে পারবে। সুতরাং এই পদক্ষেপ নিঃসন্দেহে প্রশংসনীয়।

Twitter কর্তৃপক্ষ সোমবার জানিয়েছে যে, তারা বিখ্যাত হ্যাকার পিটার জাটকো, যিনি Mudge নামক হ্যাকার হ্যান্ডেলের নামেই বেশি পরিচিত, তাকে সিকিউরিটি হেড হিসাবে নিযুক্ত করছে। সিইও জ্যাক ডরসির তত্ত্বাবধানে তিনি কাজ করবেন। ৪৫-৬০ দিনের একটি রিভিউ-এর পর তাকে সম্পূর্ণ দায়িত্ব ছেড়ে দেওয়া হবে। জাটকো একটি সাক্ষাৎকারে জানান যে তিনি ইনফর্মেশন সিকিউরিটি, সাইট ইনটিগ্রিটি, ফিজিকাল সিকিউরিটি, প্ল্যাটফর্ম ইনটিগ্রিটি ইত্যাদির পরীক্ষানিরীক্ষা করবেন।

মূলত নব্বইয়ের দশক থেকেই জাটকোর কাজকর্ম শুরু হয়েছিল। তিনি কুখ্যাত ‘Cult of the Dead Cow’ নামক হ্যাকিং গ্রুপের নেতৃত্বে ছিলেন। এই গ্রুপ উইন্ডোজ হ্যাকিং টুলস্ তৈরি করেছিল যাতে মাইক্রোসফট উইন্ডোজের সুরক্ষা ব্যবস্থা উন্নত করে। এছাড়া তিনি পেমেন্ট প্ল্যাটফর্ম Stripe-এর সুরক্ষা বিষয়ে তদারকি করেছেন। Google-এর বিশেষ প্রোজেক্টেও কাজ করেছেন এই হ্যাকার।

বর্তমানে টুইটারের সুরক্ষা নিয়ে সকলেই বেশ চিন্তিত, কারণ এখানে বিশ্বের অধিকাংশ বড় বড় ব্যক্তিত্ব তাদের মতামত প্রকাশ করে থাকেন। ফলে সম্প্রতি সময়ে বিখ্যাত ব্যক্তিত্বদের অ্যাকাউন্ট হ্যাক করে মানুষকে ভুল পথে চালিত করার একটা প্রবণতা লক্ষ্য করা যাচ্ছে। কিছুদিন আগেই আমেরিকার বর্তমান প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন, বিল গেটস এবং এলন মাস্কের মতো বড় বড় ব্যক্তিত্বদের টুইটার অ্যাকাউন্টও হ্যাক করে ফেলেছিল কিছু তরুণ হ্যাকার। এই ধরনের হ্যাকিংগুলি একটি বৃহত্তর সমস্যার দিকেই অঙ্গুলিনির্দেশ করে।

জাটকো এই সমস্যার কোন সৃষ্টিশীল সমাধান নিয়ে আসবেন বলেই সবার বিশ্বাস। টুইটারের সিকিউরিটি নিয়ে গতানুগতিক ধারার বাইরে কাজ করার প্রবণতার প্রশংসা করেছেন জাটকো। তিনি জানিয়েছেন, কোম্পানি এ বিষয়ে ঝুঁকি নিতেও প্রস্তুত।

টেকগাপের মেম্বাররা ও সদ্য যোগ দেওয়া লেখকরা এই প্রোফাইলের মাধ্যমে টেকনোলজির সমস্ত রকম খুঁটিনাটি আপনাদের সামনে আনে।