Vivo EV: স্মার্টফোনের পর এবার ভিভোর বৈদ্যুতিক গাড়িতে চড়বে মানুষ

Vivo-র বৈদ্যুতিক যানের দুনিয়ায পা দেওয়ার বিষয়টি আরো জোরদার হয়েছে ট্রেডমার্ক নথিভুক্তির আবেদনের সংবাদ জানাজানি হতেই

vivo-electric-car scooter-motorcycles-applies-for-trademark

মোবাইল প্রস্তুতকারী সংস্থাগুলির একে একে বৈদ্যুতিক যানবাহনের দুনিয়ায় পদার্পণের কথা প্রকাশ্যে আসছে।স্মার্টফোনের চরিত্রগত বৈশিষ্ট্যের সাথে এই ধরনের গাড়ির মিল থাকায়, ব্র্যান্ডগুলি অটোমোবাইল শিল্পে নিজেদের নাম লিখাতে ব্যস্ত হয়ে উঠেছে। ইতিমধ্যেই Xiaomi, Oppo, Realme-র মতো স্মার্টফোন ব্র্যান্ড ইলেকট্রিক গাড়ির উপর কাজ করছে বলে খবর। এবার সেই তালিকায় শামিল হতে চলেছে Vivo। বৈদ্যুতিক যানের দুনিয়ায পা দেওয়ার বিষয়টি আরো জোরদার হয়েছে সংস্থার ট্রেডমার্ক নথিভুক্তির আবেদনের সংবাদ জানাজানি হতেই।

উল্লেখ্য, কয়েকমাস আগে থেকেই শোনা যাচ্ছিল, BBK Electronics -এর অধীনস্থ সংস্থা Realme, OnePlus, Vivo ও Oppo

স্মার্টফোনের পাশাপাশি ইলেকট্রিক ভেহিকেলের বাজারে পা রাখতে চলেছে। তবে ভিভো আগামী দিনে কী ধরনের যানবাহন নিয়ে আসতে চলেছে সে বিষয়টি এখনো পরিষ্কার নয়। কারণ ক্লাস ১২ (Class 12) -এর অধীনে ফাইল করা সংস্থার অ্যাপ্লিকেশনের ক্যাটেগরিতে একাধিক যানবাহনের নাম উল্লেখ রয়েছে। যেগুলির মধ্যে – ইলেকট্রিক ভেহিকেল, কার, মোটরসাইকেল, চালকবিহীন বা স্বয়ংচালিত গাড়ি, বাইসাইকেল, মোপেড, সেল্ফ ব্যালান্সিং ভেহিকেল, ড্রোন।

vivo-electric-scooter-trademark-india-526x450

প্রাথমিক পর্যায়ে ভিভো দু’চাকার বৈদ্যুতিক গাড়ি (বাইক বা স্কুটার) আনতে পারে বলেই অনুমান করা হচ্ছে। এদিকে আসন্ন যানবাহনে কি-লেস এন্ট্রি, ভয়েস কমান্ড, কানেক্টিভিটি ফিচারগুলি রাখা হতে পারে বলে ধারণা।

বিশেষজ্ঞদের মত, চিনা হ্যান্ডসেট প্রস্তুতকারী সংস্থা ভিভো (Vivo)-র পক্ষে ইলেকট্রিক যানবাহনের দুনিয়ায় ব্যবসা করা অনেকটাই সহজ হবে। কারণ বৈদ্যুতিক ব্যাটারির প্রযুক্তি এবং তৈরীর মূল কেন্দ্র হিসেবে জানা যায় চীন’কে। এখনো দেশীয় বেশিরভাগ স্টার্টআপ সংস্থাগুলিই এ বিষয়ে অনেক ক্ষেত্রেই চীনের উপর নির্ভরশীল। বস্তুত নিজের দেশের বাজার থেকে ইলেকট্রিক টু-হুইলারের প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম সংগ্রহ করতে কোনোরকম বেগ পেতে হবে না ভিভো’কে। অন্যদিকে চিনা কোম্পানিগুলির ইলেকট্রিক গাড়ি ভারতে এলে এদেশের অন্যান্য টু-হুইলার সংস্থা যেমন – Ola Electric, Bajaj, TVS, Ather, Simple Energy, Revolt, Greaves Mobility, Bounce প্রভৃতির সাথে যে জোরকদমে টেক্কা চলবে তা বলাই বাহুল্য।

উল্লেখ্য, ভারতের বাজারে এতদিন চীনা মোবাইল প্রস্তুতকারী সংস্থাগুলির হাত ধরে নতুন নতুন ফিচারের মোবাইল এসেছে। এক কথায় বলতে গেলে, স্মার্টফোনের দুনিয়ায় সাড়া ফেলেছে এইসব সংস্থার মোবাইল হ্যান্ডসেটগুলি। এবার বৈদ্যুতিক যানবাহনের দুনিয়াতেও চীনা ব্র্যান্ডগুলি এমন কিছু করতে পারে কি না তা সময়ই বলবে।

শুভদীপ টেকগাপে অটোকার বিষয়ক লেখালিখি করে। এর আগে বিভিন্ন পোর্টালের সাথে যুক্ত থাকলেও, অটোকার নিয়ে টেকগাপে তার হাতেখড়ি। দিনকে দিন সে টেকগাপের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য হয়ে উঠেছে।