ফের এগিয়ে এল Vivo, সরকারি হাসপাতাল কে আরও ৬ কোটি টাকা অনুদান

Vivo India to donate RS 6 crore additional to government hospital for fight against covid 19

মারণ ভাইরাস করোনা যা বিগত এক বছরে পাল্টে দিয়েছে গোটা বিশ্বের চেহারা। নিয়ন্ত্রিত জীবন আর সর্বক্ষণের সাবধানতাকে অবলম্বন করেও সংক্রমণের হাত থেকে রক্ষা পাওয়া যাচ্ছে না। অজস্র মানুষের মৃত্যু, তৈরী হওয়া আতঙ্কের কারণে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে সামাজিক ভারসাম্য। ভারতবর্ষের মতো জনবহুল দেশে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের প্রভাবে পুরোপুরি বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে ভারতীয় স্বাস্থ্য ব্যবস্থা। অক্সিজেনের আকাল, হাসপাতালে শয্যার অভাবে অহরহ প্রাণ হারাচ্ছে বহু মানুষ। যে কারণে ভারতের পাশে দাঁড়াচ্ছে বহু মানুষ এবং দেশী-বিদেশী বিভিন্ন সংস্থা। তাঁদের নিরন্তর প্রচেষ্টা এবং সহযোগিতায় খুব ধীরে ধীরে হলেও কিছুটা হাল ফিরছে। এর মধ্যে চীনা স্মার্টফোন নির্মাতা ভিভো (Vivo) আজ ঘোষণা করেছে তাঁরা ভারতকে কোভিড-১৯ মোকাবিলায় ১০ কোটি টাকা অনুদান দেবে। করোনার দ্বিতীয় দফার শুরুতেই অক্সিজেন কনসেন্ট্রেটর এবং সিলিন্ডারের ঘাটতি মেটাতে ভিভো ঘোষণা করেছিল যে, তাঁরা ২ কোটি টাকা আর্থিক সাহায্য করবে, সেই টাকাটাও এর মধ্যে অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। এই টাকার মধ্যে কোভিড মোকাবিলার জন্য ভারতের বিভিন্ন সরকারী হাসপাতালকে তাঁরা ৬ কোটি টাকা প্রদান করবে।

ভিভো ইন্ডিয়ার (Vivo India) ব্র্যান্ড স্ট্র্যাটেজি ডিরেক্টর নিপুণ মরিয়া (Nipun Marya) একটি বিবৃতিতে বলেছেন, “আমরা আজ মানব ইতিহাসের সবচেয়ে কঠিন সংকটের মুখোমুখি এবং আমাদের সকলের উচিত এই ভয়াবহ সময়ে একে অপরকে সহযোগিতা করা। ভিভো জনগণের কাছে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ এবং আমরা মনে করি এই উদ্যোগগুলি সমাজের প্রতি আমাদের একটি ছোট্ট পদক্ষেপ। আমরা প্রত্যেকে এক সঙ্গে আছি এবং একে অপরের সাহায্যে এগিয়ে এসে আমরা নিশ্চয় মহামারিকে জয় করতে পারব।”

পাশাপাশি, দ্য ইন্টারন্যাশনাল সোসাইটি ফর কৃষ্ণ কনশাসনেস বা ইস্কনের (ISKCON) সাথে হাত মিলিয়ে, Vivo বিনামূল্যে এক লক্ষ রান্না করা মিল বিতরণ করার জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়েছে। জাতীয় রাজধানী অঞ্চলের গুরুগ্ৰাম এলাকার কোভিড রোগীদের দোরগোড়ায় গিয়ে এই খাবার পৌঁছে দেবার ব্যবস্থা করবে Vivo। এছাড়া মধ্যাহ্নভোজ সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান অক্ষয় পাত্র ফাউন্ডেশনের সঙ্গে Vivo আরেকটি চুক্তিতে আবদ্ধ হয়েছে। যার লক্ষ্য দিল্লীর সরকারী স্কুলগুলিতে পাঁচশোরও বেশী সংখ্যক ছাত্র-ছাত্রীদের “হ্যাপিনেস কিট” (Happiness Kit) সরবরাহ করা। এটি একটি ছয়মাস ব্যাপী দীর্ঘ প্রকল্প। সর্বশেষ, Vivo আরও জানিয়েছে যে কার্ডিও-ভেন্টিলেটর মেশিন সংযুক্ত দুটি অ্যাম্বুলেন্স দান করবে, যদিও কোন হাসপাতালে অ্যাম্বুলেন্সদুটি দেওয়া হবে তা জানানো হয়নি।

তবে এই পরিস্থিতিতে ভারতকে শুধু ভিভো (Vivo) সাহায্য করছে এমন নয়। গুগল (Google), অ্যাপল (Apple), মাইক্রোসফ্টের (Microsoft) মতো প্রতিষ্ঠান ভারতবাসীর পাশে এসে দাঁড়িয়েছে। এছাড়া শাওমি (Xiaomi) তাদের সোশ্যাল মিডিয়া কন্টেস্ট, ফ্রিবিস্ ইত্যাদি প্রোমোশনের জন্য বরাদ্দ অর্থ তুলে দিয়েছে ভারতের কোভিড ত্রাণ তহবিলে। শাওমি (Xiaomi) জানিয়েছে, “বর্তমান পরিস্থিতির আলোকে, আমরা বিভিন্ন গিভ অ্যা ওয়েস্ (Giveaways) এবং সোশ্যাল মিডিয়া প্রচারের জন্য বরাদ্দ করা যে বাজেট, তা আমরা হ্রাস করেছি। আমরা যে পরিমাণ অর্থ সঞ্চয় করব তা কোভিড ত্রাণে অবদান রাখবে।”

আবার আরেকটি চাইনিজ ব্র্যান্ড রিয়েলমি (RealMe), ভারতের পাশে দাঁড়িয়ে এক লক্ষ মাস্ক বিতরণ এবং হেমকান্ট ফাউন্ডেশনে ৩০০০ লিটার অক্সিজেন ডোনেট করেছে।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন