রিলায়েন্স জিও, ভোডাফোন আইডিয়া ও এয়ারটেল আর বাড়াবেনা ভ্যালিডিটি

করোনা ভাইরাসের কারণে দেশজুড়ে চলা লকডাউনে গ্রাহকরা যাতে সবার সাথে জুড়ে থাকতে পারে তাই টেলিকম রেগুলেটরি অথরিটি অফ ইন্ডিয়া (TRAI) বারবার টেলিকম কোম্পানিগুলিকে রিচার্জ প্ল্যানের ভ্যালিডিটি বাড়ানোর জন্য অনুরোধ করেছিল। কিন্তু এবার থেকে আর তা তারা করবে না বলে জানিয়েছে। ট্রাই এর তরফে বলা হয়েছে, গ্রাহকদের ভ্যালিডিটি বাড়ানোর জন্য কোম্পানিগুলির কাছে আর নতুন কোনো নির্দেশ পাঠানো হবেনা।

ইকোনোমিক টাইমস এর রিপোর্ট অনুযায়ী, ট্রাই সমস্ত ডেটা বিশ্লেষণ করে এই বিবৃতি দিয়েছে। যদিও ট্রাই পরিস্থিতির উপর নজর রাখবে এবং টেলিকম কোম্পানিগুলির সাথে যোগাযোগ রাখবে। প্রসঙ্গত ট্রাই সমস্ত টেলিকম কোম্পানির কাছে কিছুদিন আগে জানতে চেয়েছিল, কত কত গ্রাহকের ভ্যালিডিটি বাড়ানো হয়েছে। টেলিকম কোম্পানিগুলি এরপর সেই ডেটা জমা দেওয়ার পর, ট্রাই তা বিশ্লেষণ করে নতুন করে আর ভ্যালিডিটি বাড়ানোর জন্য নির্দেশ দেবে না বলে জানিয়েছে।

আমরা জানি যে দেশে লকডাউনের দ্বিতীয় পর্যায় চলছে। প্রধানমন্ত্রী প্রথম লকডাউন ঘোষণা করার কয়েকদিন পরেই টেলিকম কোম্পানিগুলি তাদের রিচার্জ প্ল্যানের ভ্যালিফিটি ১৭ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়িয়ে দিয়েছিল। এরসাথে ১০ টাকা টকটাইম হিসাবেও দেওয়া হয়েছিল। এই সুবিধা পেয়েছিল স্বল্পআয়ের গ্রাহকরা।

এরপর লকডাউন আরো বাড়লে টেলিকম কোম্পনীগুলি গ্রাহকদের পরিষেবা ৩ মে পর্যন্ত চালু রাখার সিদ্ধান্ত নেয়। অর্থাৎ ৩ মে পর্যন্ত গ্রাহকরা রিচার্জ শেষ হলেও ইনকামিং কলের সুবিধা পাবে। কিন্তু এরপর লকডাউন যদি আরও বাড়ে তাহলে কোম্পানিগুলি তাদের অফার আর নাও বাড়াতে পারে। এবং সেইসময় কোম্পানিগুলিকে অনুরোধ করবেনা ট্রাই তা আজ স্পষ্ট করলো।

এদিকে লকডাউনে গ্রাহকদের রিচার্জ করতে সমস্যা হবেনা বলে জানিয়েছে টেলিকম কোম্পানিগুলি। তারা অনলাইন, এটিএম, বিভিন্ন ফার্মেসি থেকে রিচার্জের সুবিধা রেখেছে। এমনকি এই সময় কোনো গ্রাহক যদি অন্য গ্রাহকের রিচার্জ করে দেয় তাহলে কমিশন ও মিলবে বলে জানিয়েছে টেলিকম কোম্পানিগুলি।