নাম তো শুনেছেন কিন্তু জানেন CDMA, GSM, LTE ও GPS এর অর্থ কি? এরা কিভাবে কাজ করে

টেকনোলজি এবং গ্যাজেট এর বেশ কয়েকটি শব্দের সঙ্গে আমরা পরিচিত হলেও সেগুলো কি আমরা জানি না। এখানে আমরা আপনাদের এমন কিছু টেকনোলজি মূলক শব্দের ব্যাপারে জানাবো হয়তো আপনারা আগে শুনেছেন কিন্তু তার ব্যাপারে বিস্তারে জানেন না।

• CDMA- এটির পুরো কথা কোড ডিভিশন মাল্টিপল অ্যাকসেস। এই টেকনোলজি মূলত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সবথেকে বেশি ব্যবহার করা হয়। ভারতে আগে এর ব্যবহার হতো কিন্তু এখন প্রচলন একেবারে নেই বললেই চলে। এই ধরনের টেকনোলজির মাধ্যমে অনেকজন ব্যবহারকারী একসাথে কথা বলতে পারেন যারা একই ফ্রিকুয়েন্সি শেয়ার করছেন। তবে এই টেকনোলজি ব্যবহার করলে আপনার ব্যাটারি লাইফ খারাপ হয়ে যেতে পারে কারণ অতিরিক্ত সিগনাল নয়েজ কমানোর জন্য এখানে বেশি শক্তির প্রয়োজন হয়। এই ধরনের হ্যান্ডসেটের সব থেকে বড় অসুবিধা হলো এই হ্যান্ডসেটে আপনারা কখনই ক্যারিয়ার পরিবর্তন করতে পারবেন না। এই কারণেই মূলত সিডিএমএ-র ব্যবহার ভারতে খুবই কম হয়ে গিয়েছে। উদাহরণ- MTS

• GSM – জিএসএম ওরফে গ্লোবাল সিস্টেম ফর মোবাইল কমিউনিকেশন একটি ডিজিটাল মোবাইল টেলিফোন সিস্টেম যা ইউরোপসহ বিশ্বের বাকি অংশে ব্যবহার করা হয়। জিএসএম হ্যান্ডসেট আপনারা একটি কেরিয়ার থেকে অন্য ক্যারিয়ারে পরিবর্তন করতে পারেন। Vodafone, Airtel

• LTE – বর্তমানে সবথেকে প্রচলিত ৪জি ওয়ারলেস ব্রডব্যান্ড টেকনোলজি হল এলটিই লং-টার্ম ইভোলিউশন। এই টেকনোলজি ৪জি মোবাইল ফোন এবং ডেটা টার্মিনালের জন্য হাই স্পিড ডাটা এবং কমিউনিকেশন স্থাপন করে।

• GPS – এটি একটি স্যাটেলাইট নির্ভর লোকেশন সার্ভিস। লোকেশন এর সাথে সাথে এটি আবহাওয়ার তথ্য দিতেও সক্ষম। এছাড়াও জিপিএস ব্যবহার করে আপনারা যে কোন মানুষের সঠিক লোকেশন জেনে নিতে পারবেন।

WhatsApp এ সব খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন।