ফ্লিপকার্ট অ্যামাজনদের টেক্কা দিতে অ্যাড টু কার্ট শপিং বাটন আনলো WhatsApp

ইউজারদের ডিজিটাল ব্যবসা আরও সহজ এবং মজাদার করে তুলতে অনলাইন পেমেন্ট এবং শপিংয়ের সুবিধা নিয়ে চলে আসলো শর্ট মেসেজিং প্ল্যাটফর্ম WhatsApp। ইতিমধ্যেই ভারতে ইউপিআই বেসড পেমেন্ট সিস্টেমের অনুমতি পেয়েছে জনপ্রিয় চ্যাটিং মাধ্যমটি। WhatsApp Pay নামের এই ফিচারের মাধ্যমে ফেসবুকের মালিকানাধীন সংস্থাটি আগামী দিনে বাজারের অন্যান্য সব UPI অ্যাপ্লিকেশনকে টেক্কা দিতে পারে। তবে, বর্তমান দিনগুলিতে WhatsApp যেভাবে শপিং ফিচারের সুবিধা প্রসারিত করতে কাজ করছে, তাতে দেশের ই-কমার্স প্ল্যাটফর্মগুলির ব্যবসাতেও প্রভাব পড়তে চলেছে বলেই মনে করছে বিশেষজ্ঞ মহল।

দিন কয়েক আগেই WhatsApp তার বিজনেস অ্যাপে ডেডিকেটেড শপিং বাটন চালু করেছিল। এবার ইউজারদের শপিংয়ের অভিজ্ঞতা আরও উন্নত করতে ‘অ্যাড টু কার্ট’ (Add to Cart) নামের আরও একটি নতুন অপশন তারা নিয়ে এল। এই কার্ট অপশনের সাহায্যে ইউজাররা কোনো প্রোডাক্ট ক্যাটালগ ব্রাউজ করতে, প্রোডাক্ট সিলেক্ট করতে এবং মেসেজের আকারে অন্য কাউকে অর্ডার পাঠাতে পারবেন।

হোয়াটসঅ্যাপের দাবি, ব্যবসায়ীরা সহজেই এই ফিচারটির মাধ্যমে নিজেদের কাজ পরিচালনা করতে পারবেন এবং গ্রাহকদের সাথে সংযোগ রাখতে পারবেন।

কীভাবে কাজ করে হোয়াটসঅ্যাপের শপিং বাটন:

যারা জানেন না তাদের বলে রাখি, হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে কেনাকাটা করতে প্রথমে কোনো বিজনেস চ্যাট বা প্রোফাইলে যান। এরপর প্রোডাক্ট ক্যাটালগ অ্যাক্সেস করতে, সেই প্রোফাইলের নামের পাশে অবস্থিত বাটন আইকনে ক্লিক করুন। ক্যাটালগটি প্রদর্শিত হলে, পছন্দমত প্রোডাক্টের বিশদ ব্রাউজ করুন। এক্ষেত্রে একসাথে একাধিক প্রোডাক্ট কিনতে ‘অ্যাড টু কার্ট’ অপশনটি ব্যবহার করতে পারেন।

এছাড়া, হোয়াটসঅ্যাপে শপিংয়ের সময় ইউজাররা সেলার বা ব্যবসায়ীর সাথে প্রোডাক্ট সম্পর্কিত চ্যাট করতে পারবেন। জানিয়ে রাখি, কেবলমাত্র সেলারের মেসেজ থেকেই অর্ডার কনফার্ম হয়েছে কিনা জানা যাবে। বিক্রেতা নিশ্চিত না করলে ইউজারের অর্ডার চূড়ান্ত হিসাবে বিবেচিত হবে না।