মাল্টি-ডিভাইস সাপোর্টে কিভাবে কাজ করবে কলিং ফিচার, পরীক্ষা করছে WhatsApp

বিগত কয়েকমাস ধরে শোনা যাচ্ছে, ইনস্ট্যান্ট মেসেজিং অ্যাপ WhatsApp, মাল্টি-ডিভাইস সাপোর্ট ফিচারের ওপর কাজ করছে, যার ফলে আসন্ন দিনগুলিতে ইউজাররা তাদের হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্টটি চারটি ভিন্ন ডিভাইসে চালাতে পারবেন। কিন্তু এখনও পর্যন্ত, হোয়াটসঅ্যাপে এই মাল্টি-ডিভাইস সাপোর্ট ফিচার ঠিক কবে উপলব্ধ হবে সেই বিষয়ে কোনো সুনির্দিষ্ট তথ্য পাওয়া যায়নি। তবে হোয়াটসঅ্যাপ সম্পর্কিত খবর সরবরাহকারী পোর্টাল WABetaInfo গতকাল জানিয়েছে যে এই মুহূর্তে চ্যাটিং প্ল্যাটফর্মটি – মাল্টি-ডিভাইস সাপোর্ট চালু হওয়ার পর ভয়েস বা ভিডিও কলগুলি কীভাবে কাজ করবে সেই নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করছে।

আসলে, সম্প্রতি এক ইউজার টুইটারে WABetaInfo-র কাছে WhatsApp-এ মাল্টি-ডিভাইস সাপোর্টের উপলভ্যতা সম্পর্কে জানতে চায়। তার উত্তরেই WABetaInfo উত্তর দেয় যে, গত সপ্তাহ থেকে এই কল ম্যানেজমেন্ট সম্পর্কিত পরীক্ষা শুরু করেছে হোয়াটসঅ্যাপ। তবে ঠিক কবে এই ফিচারটি রোলআউট হবে সেই বিষয়ে কোনো তথ্য নেই এমনটাও স্পষ্টভাবে জানিয়েছে পোর্টালটি।

প্রসঙ্গত গতমাসে অর্থাৎ নভেম্বরে WABetaInfo জানিয়েছিল যে, হোয়াটসঅ্যাপে মাল্টি-ডিভাইস সাপোর্ট আসার পর সমস্ত লগ-ইন ডিভাইসগুলিতেই একই সাথে অডিও বা ভিডিও কলের নোটিফিকেশন আসবে। অর্থাৎ, কোনো ইউজার যদি একটির বেশি ডিভাইসে একই হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করেন, সেক্ষেত্রে লগ-ইন থাকা সমস্ত ডিভাইসে একই সাথে ইনকামিং কলের নোটিফিকেশন পাওয়া যাবে; ইউজার তার পছন্দ বা সুবিধেমত ডিভাইস থেকে কলগুলি রিসিভ করতে পারবেন।

গত সেপ্টেম্বরে, ডাব্লুএবিটাইনফো জানিয়েছিল যে WhatsApp এর অ্যান্ড্রয়েড বিটা ইউজারদের জন্য মাল্টি-ডিভাইস ফিচারটির কাজ চূড়ান্ত পর্যায়ে পৌঁছেছে। যদিও এরপর কেটে গেছে দুই মাসেরও বেশি সময়। এখনও অবধি এই বিষয়ে কোনো আনুষ্ঠানিক ঘোষণা করেনি ফেসবুকের মালিকানাধীন শর্ট মেসেজিং প্ল্যাটফর্মটি। এখন দেখার সমস্ত সমস্যা সমাধান করে, ঠিক কবে হোয়াটসঅ্যাপ এই ফিচারটি নিয়ে আসে।