আপনার ব্যক্তিগত মেসেজ পড়তে পারবে না হ্যাকার – এই Whatsapp সেটিংসগুলি সক্রিয় করুন

Whatsapp ব্যবহারকারীর তথ্য চুরি আটকাতে এন্ড-টু-এন্ড এনকআটকাতে ফিচার অনেক কার্যকরী

whatsapp-tips-and-tricks-do-these-settings-to-stop-hackers-read-private-message

এন্ড-টু-এন্ড এনক্রিপশন ফিচারের দৌলতে হোয়াটসঅ্যাপ (Whatsapp) বর্তমানে অনেকটাই সুরক্ষিত। অর্থাৎ হ্যাকারেরা এখানে খুব সহজে আমাদের ব্যক্তিগত তথ্যের নাগাল পায় না। এর ফলে আমরা নির্বিঘ্নে মেসেজিংয়ের অভিজ্ঞতা উপভোগ করতে পারি। কিন্তু সবসময় মনে রাখা দরকার যে হ্যাকারেরা কখনোই ব্যবহারকারীর তথ্য চুরির প্রচেষ্টা ত্যাগ করে না। এন্ড-টু-এন্ড এনক্রিপশনের সুবিধা কার্যকর থাকার পরেও তারা সামান্য অসচেতনতার সুযোগে আমাদের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য, পরিচয় এমনকি অ্যাকাউন্টের নিয়ন্ত্রণ পর্যন্ত দখল করতে পারে। এদের হাত থেকে অ্যাকাউন্টকে সুরক্ষিত রাখতে হলে হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারকারীদের কয়েকটি বিষয়ে সতর্ক থাকা দরকার।

যেভাবে হ্যাকারেরা Whatsapp ব্যবহারকারীর তথ্য চুরি করে

একথা সকলেই জানেন যে হোয়াটসঅ্যাপ এসএমএস (SMS) ভেরিফিকেশনের মাধ্যমে ব্যবহারকারীর অ্যাকাউন্ট যাচাই করে। এজন্য তারা আমাদের ফোন নম্বরে ছয় অঙ্কের একটি ভেরিফিকেশন কোড প্রেরণ করে। বেশীরভাগ ক্ষেত্রে হ্যাকারেরা পরিচিত সেজে আমাদের কাছ থেকে এই কোড হাতিয়ে নেয়। যারা প্রযুক্তি ব্যবহারে ততটা সড়গড় নন তারা তো বটেই, এমনকি অপেক্ষাকৃত জানাবোঝা মানুষ পর্যন্ত হ্যাকারদের ফাঁদে পা দিয়ে বসেন। আসলে বন্ধু পরিচয় দিয়ে কেউ ভেরিফিকেশন কোড জানতে চাইলে সেটা কখনোই তার হাতে তুলে দেওয়া উচিত নয়। কারণ এর মাধ্যমে আমাদের চ্যাটিং ডেটা অসৎ ব্যক্তির করায়ত্ত হতে পারে। তাছাড়া অ্যাকাউন্ট এর উপর নিয়ন্ত্রণ কায়েম করে এভাবে হ্যাকারগণ আরো বেশী সংখ্যক মানুষকে অতিষ্ঠ করে তোলে।

Two-step Verification সেটিং সক্রিয় করুন

হ্যাকারদের হাত থেকে নিজের অ্যাকাউন্টকে সম্পূর্ণ সুরক্ষিত রাখতে হোয়াটসঅ্যাপের টু-স্টেপ ভেরিফিকেশন সেটিং সক্রিয় করা দরকার। এক্ষেত্রে আপনি একটি ছয় অঙ্কের পিন তৈরীর সুযোগ পাবেন। এসএমএস ভেরিফিকেশনের পর সমস্ত ক্ষেত্রেই অ্যাকাউন্টে প্রবেশের জন্য উক্ত পিন প্রদান করতে হবে। ফলে এসএমএসের কোড হ্যাকারের করায়ত্ত হলেও, ছয় অঙ্কের এই পিন ব্যবহারকারীর অ্যাকাউন্টকে সুরক্ষিত রাখবে।

টু-স্টেপ ভেরিফিকেশন (Two-step verification) ফিচার সক্রিয়করণের জন্য হোয়াটসঅ্যাপের সেটিংস (Settings) বিভাগে পৌঁছে যথাক্রমে Account > Two-step verification বিকল্প চয়ন করতে হবে। এরপর ব্যবহারকারী ছয় অঙ্কের পিন এন্টার করবেন যা তিনি বাদে অন্য কারোর পক্ষে জানা সম্ভব হবেনা। যথাযথভাবে পিন প্রদানের পর টু-স্টেপ ভেরিফিকেশন ফিচার কার্যকর হয়ে যাবে।

Privacy Settings যাচাই করুন

হ্যাকারদের হাত থেকে বাঁচতে সরকারী নিজস্ব প্রাইভেসি সেটিংস যাচাই করা দরকার। এজন্য সেটিংসে পৌঁছে Privacy বিকল্প বেছে নিন। এরপর আপনার ব্যাক্তিগত তথ্য অর্থাৎ লাস্ট সিন, অ্যাবাউট, প্রোফাইল ফটো ও স্ট্যাটাস কারা দেখতে পাবে সেটা নির্বাচন করুন। যে কোনো অপরিচিত মানুষের দৃষ্টি থেকে
ব্যক্তিগত তথ্য আড়াল করতে চাইলে ব্যবহারকারী ‘My Contacts’ বিকল্প বেছে নিয়ে নিজের অ্যাকাউন্ট সুরক্ষিত রাখতে পারেন। এছাড়া অপরিচিত কারোর মেসেজ পেতে না চাইলে ব্যবহারকারী সেই নির্দিষ্ট মানুষটিকে ব্লক (Block) করতে পারেন।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন

One of the newest members of the Techgup Family. Soumo grew his liking for gadgets almost a decade back while searching for his first smartphone, and started writing about tech recently in 2020