চারটি ফোনে চলবে একটি হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্ট, ব্যাকআপের জন্য দরকার হবে ওয়াই-ফাই

whatsapp-working-on-multiple-device-support-to-enable-syncing-of-chat-history

স্মার্টফোন ব্যবহার করেন কিন্তু WhatsApp-এর সাথে পরিচিত নন, এমন ইউজার খুব কমই আছে। বিশ্বের জনপ্রিয় এই মেসেজিং অ্যাপটি প্রায়ই নতুন ফিচার নিয়ে আসে, একথাও আপনাদের অজানা নয়। কয়েক সপ্তাহ ধরে শোনা যাচ্ছে হোয়াটসঅ্যাপে আসতে চলেছে বহু প্রতীক্ষিত মাল্টিপল ডিভাইস সাপোর্ট ফিচার, যার সাহায্যে আপনি আপনার WhatsApp অ্যাকাউন্ট একই সাথে বিভিন্ন ডিভাইসে (৪টি) ব্যবহার করতে পারবেন, ঠিক ফেসবুকের মতই।

আপাতত ডেভেলপাররা এই ফিচারটি নিয়ে কাজ করছেন, খুব শীঘ্রই এটি সমস্ত ইউজারের জন্য উপলব্ধ হবে। এছাড়া, WhatsApp, iOS ও অ্যান্ড্রয়েডের জন্য একটি নতুন ইন্টারফেস তৈরি করতে কাজ করছে। WABetaInfo এর রিপোর্ট অনুযায়ী, মাল্টিপল ডিভাইস সাপোর্ট ফিচারটি রোল আউট হওয়ার পর ইউজাররা একই সময়ে চারটি আলাদা ডিভাইস থেকে হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করতে সক্ষম হবেন।

এক্ষেত্রে যখন কোনো ইউজার দ্বিতীয় ডিভাইসে হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করার চেষ্টা করবেন, তখন চ্যাট ব্যাকআপের জন্য Wi-Fi কানেকশন প্রয়োজন হতে পারে। কারণ, আমাদের অনেকেরই হোয়াটসঅ্যাপে প্রচুর মেসেজ থাকে, যা কপি করতে বিশাল ডেটা খরচ হতে পারে।

হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট হিস্ট্রি দ্বিতীয় ডিভাইসে কপি হয়ে যাওয়ার পর, আপনি অ্যাকাউন্টটি ব্যবহার করতে পারবেন। সমস্ত ডিভাইস থেকেই আপনার চ্যাট হিস্ট্রির সিংক্রোনাইজেশন হবে এবং আপনি যখন কোনও ডিভাইস ব্যবহার করবেন বা সেই ডিভাইস থেকে হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্ট রিমুভ করবেন তখন আপনার অ্যাকাউন্ট এনক্রিপশনে কিছু পরিবর্তন হবে।

শোনা যাচ্ছে, হোয়াটসঅ্যাপ আইপ্যাডের জন্য একটি অ্যাপ্লিকেশন তৈরি করেছে যা মাল্টিপল ডিভাইস সাপোর্ট ফিচার আসার কিছুদিনের মধ্যেই আনা হতে পারে। এরফলে ইউজাররা তাদের আইফোন এবং আইপ্যাডে একই সময়ে নিজেদের হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করতে সক্ষম হবেন।ভবিষ্যতে অ্যান্ড্রয়েড এবং আইওএস ডিভাইসের মধ্যে মিউচুয়াল সাপোর্ট দেখা যেতে পারে। যার ফলে অ্যান্ড্রয়েড এবং আইওএস ডিভাইসে একই সময়ে একই অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করা যাবে।