৭ মিনিটে হবে ফুল চার্জ, Xiaomi-র ২০০ ওয়াট ফাস্ট চার্জার ফোনের ক্ষতি করবে?

xiaomi-200w-wired-120w-wireless-charging-higher-battery-life-company-claim

দিন দুই-তিন আগেই নিজের নতুন ২০০ ওয়াট ওয়্যারড ফাস্ট চার্জিং এবং ১২০ ওয়াট ওয়্যারলেস ফাস্ট চার্জিং সম্পর্কে মুখ খুলেছে Xiaomi, যেখানে সংস্থার ইঞ্জিনিয়াররা আগামী দিনের অধিকাংশ ফোনে ওয়্যারলেস চার্জিং ফিচার থাকার সম্ভাবনার কথা বলেছেন। তবে ওই আলোচনায় চীনা টেক জায়ান্ট সংস্থাটি এই সদ্য চালু হওয়া প্রযুক্তিদুটি সম্পর্কে কিছু ইউজারদের প্রশ্নের উত্তরও দিয়েছে, যার মধ্যে এই দুটি ফাস্ট চার্জিং টেকনোলজি থেকে স্মার্টফোনের সুরক্ষা কিরূপ হবে সে বিষয়ে স্পষ্ট ধারণা পাওয়া গেছে।

Xiaomi, তার ২০০ ওয়াট এবং ১২০ ওয়াট ফাস্ট চার্জিংয়ের বিষয়ে বলেছে যে এগুলি ব্যবহারের জন্য নিরাপদ যা দীর্ঘদিনের গবেষণা ও বিকাশের ফলে প্রস্তুত হয়েছে। এক্ষেত্রে নতুন চার্জিং প্রযুক্তিদুটিতে ৪০টি সুরক্ষা এবং প্রতিরক্ষামূলক ব্যবস্থা অন্তর্ভুক্ত রয়েছে বলে জনপ্রিয় ব্র্যান্ডটির অভিমত। শুধু তাই নয়, Xiaomi উল্লেখ করেছে যে এই নতুন দুটি চার্জিং প্রযুক্তির মাধ্যমে ৮০০ বার ফোন চার্জ করা হলেও তার ব্যাটারির কর্মক্ষমতা ৮০ শতাংশের কাছাকাছি বজায় থাকবে।

কার্যকারিতার কথা বললে, নতুন হাইপারচার্জ ফাস্ট চার্জিং সলিউশনগুলির ওপর থেকে পর্দা সরানোর সময়, Xiaomi দেখিয়েছিল যে ২০০ ওয়াট তারযুক্ত চার্জার কেবল তিন মিনিটের মধ্যে ৪,০০০ এমএএইচ ক্যাপাসিটির ব্যাটারি ৫০% অবধি চার্জ করতে পারে এবং সম্পূর্ণ চার্জ সরবরাহ করতে এটি প্রায় আট মিনিট সময় নেয়। একইভাবে, ১২০ ওয়াট ওয়্যারলেস চার্জিং সলিউশনটির সাহায্যে ওই একই ক্যাপাসিটির ব্যাটারি মাত্র সাত মিনিটের মধ্যে ৫০ শতাংশ চার্জ হতে পারে; যেখানে পুরো ব্যাটারিটি চার্জ হতে গেলে সর্বোচ্চ ১৫ মিনিট সময় লাগবে।

এই প্রসঙ্গে বলে রাখি, ১২০ ওয়াটের ওয়্যারলেস হাইপারচার্জিং প্রযুক্তিটি গত অক্টোবরে চালু হওয়া ৮০ ওয়াট ওয়্যারলেস চার্জিং ফিচারের উত্তরসূরি হিসাবে এসেছে। তবে দেখার বিষয় এটাই যে এখন এগুলির লভ্যতা কেমন হয়! সেক্ষেত্রে আশা করা যায় ২০০ ওয়াট কিংবা ১২০ ওয়াট – দু রকম প্রযুক্তিই মূলত ব্র্যান্ডের প্রিমিয়াম ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোনগুলিতে পরিলক্ষিত হবে।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন

A person who enjoys creating, buying, testing, evaluating and learning about new technology.