কেন 5G সাপোর্ট ছাড়া এসেছে Redmi Note 10 সিরিজ, উত্তর দিলেন শাওমি কর্তা

xiaomi-explains-why-redmi-note-10-pro-series-wont-support-5g

প্রত্যাশা মতই গতপরশু অর্থাৎ ৪ঠা মার্চ ভারত সহ বিশ্ববাজারে লঞ্চ হয়েছে Xiaomi-র নতুন Redmi Note 10 সিরিজ। আগামী ১৬, ১৭ এবং ১৮ তারিখ – এই সিরিজের Redmi Note 10, Note 10 Pro এবং Note 10 Pro Max ফোন তিনটি প্রথমবার কেনার জন্য উপলব্ধ হবে। এই ফোনগুলিতে অ্যান্ড্রয়েড ১১ ওএস, ৬ জিবি র‌্যাম, ৫,০০০ এমএএইচ ব্যাটারি (সাধারণভাবে), ৩৩ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং, স্ন্যাপড্রাগন প্রসেসর সহ একাধিক আকর্ষণীয় ফিচার রয়েছে। যদিও এই ফিচারগুলিতে মন ভরেনি অনেক Redmi প্রেমীর। কারণ এই নতুন ডিভাইসগুলিতে কেবল 4G কানেক্টিভিটির সাপোর্ট রয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় এই নিয়ে অনেকেই রেডমি কে অভিযোগ করেছেন। যারপর গতকাল এই খামতির রহস্য খোলসা করেছেন খোদ শাওমি কর্তা নিজেই।

একটি ফেসবুক পোস্টে গতকাল শাওমি ইন্ডিয়ার প্রধান মনু কুমার জৈন জানিয়েছেন যে, সংস্থা ব্যয় বাঁচানোর উদ্দেশ্যেই এই লেটেস্ট ডিভাইসগুলিতে 5G কানেক্টিভিটি দেয়নি। তাছাড়া এখনো ভারতে 5G নেটওয়ার্ক উপলব্ধই নেই। এমনকি এই বছর শেষ হওয়ার আগে নেটওয়ার্কটির জন্য প্রয়োজনীয় স্পেকট্রাম নিলাম হলেও, দেশের সব অঞ্চলে এটির সুবিধা পৌঁছাতে কমপক্ষে ২-৩ বছর লাগতে পারে। এই সময়ের মধ্যে ইউজাররা এমনিতেই ২-৩ বার ফোন পরিবর্তন করতে পারেন বলে মনে করছেন মনু।

তাঁর মতে, রেডমি নোট ১০ ছাড়াও সংস্থার এই মুহূর্তে বেশ কয়েকটি ৫জি (5G) ফোন রয়েছে। আগামী দিনে এই জাতীয় ফোন আরো লঞ্চ করতে পারলে তারা নিজেরাও খুশিই হবেন। তবে ৫জি ফোনের জন্য প্রয়োজনীয় মডেম এবং অ্যান্টেনার খরচ যথেষ্ঠ ব্যয়বহুল। তাই ইউজাররা যখন এটির সুবিধা নিতেই পারবেননা, তখন এর জন্য অতিরিক্ত ব্যয় করা যুক্তিসম্মত নয় বলেই মনে করেছেন তিনি। এক্ষেত্রে জানিয়ে রাখি, Redmi Note 10, Note 10 Pro এবং Note 10 Pro Max ফোনগুলির দাম ধার্য করা হয়েছে যথাক্রমে ১১,৯৯৯ টাকা, ১৫,৯৯৯ টাকা এবং ১৮,৯৯৯ টাকা (৬ জিবি + ৬৪ জিবি ভ্যারিয়েন্টের জন্য)।

প্রসঙ্গত, বিগত কয়েক মাসে ৫জি ফোনের উৎপাদন বেশ বেড়েছে। হালফিল সময়ে লঞ্চ হওয়া বেশির ভাগ মিড-রেঞ্জার ফোনেই এই নেটওয়ার্ক কানেক্টিভিটির সুবিধা দেওয়া হচ্ছে। এদিকে কয়েক মাস আগে ভারতের শীর্ষস্থানীয় টেলিকম অপারেটর Reliance Jio দাবি করেছিল যে, তারা ২০২১ সালের দ্বিতীয়ার্ধে এই পরিষেবা নিয়ে আসবে। আবার সংস্থার সবচেয়ে বড় প্রতিদ্বন্দ্বী Bharti Airtel ইতিমধ্যেই ৫জি নেটওয়ার্কের সফল প্রদর্শন করে দেখিয়েছে। কিন্তু এসবের সত্বেও দেশে কবে ৫জি পরিষেবা চালু হবে বা কবে টেলিকম বিভাগ এই নেটওয়ার্কের জন্য জরুরী স্পেকট্রাম নিলাম করবে – সেবিষয়ে এখনো পর্যন্ত কোনো স্পষ্ট আপডেট পাওয়া যায়নি। সেক্ষেত্রে এইমুহূর্তে 5G ডিভাইস কেনা বোকামি ছাড়া আর কিছুই নয়।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন