অ্যান্ড্রয়েড বাদ দিয়ে নিজস্ব MIUI অপারেটিং সিস্টেম আনতে পারে Xiaomi

xiaomi-may-bring-own-miui-os-disassociated-from-android

সাধারণত সমস্ত অ্যান্ড্রয়েড ডিভাইস, গুগলের অপারেটিং সিস্টেমের ভিত্তিতে চলে। কিন্তু বেশির ভাগ স্মার্টফোন নির্মাতাই তাদের ডিভাইসে নিজস্ব কাস্টম স্কিন বা সফ্টওয়্যার ব্যবহার করে। যেমন, ভারতের সবচেয়ে বড় স্মার্টফোন কোম্পানি Xiaomi, তার সমস্ত ডিভাইসে (Mi A সিরিজ বাদে) নিজস্ব MIUI কাস্টম স্কিন ব্যবহার করে। একাধিক মজাদার ফিচার এবং উন্নত অ্যানিমেশনের জন্য, ইউজাররা Xiaomi-র এই MIUI ওএসটি অত্যন্ত পছন্দ করেন। গত মাস থেকে সংস্থাটি তার নতুন MIUI 12 ভার্সনের স্টেবল আপডেট রোল আউট করেছে, যেখানে প্রচুর নতুন ফিচার যুক্ত করেছে শাওমি।

কিন্তু সম্প্রতি একটি রিপোর্ট সামনে এসেছে, যা শোনার পর শাওমি ফ্যানরা আশ্চর্য হয়ে যেতে পারেন। আসলে এই রিপোর্টে বলা হয়েছে, চীনা সংস্থাটি গুগলের অ্যান্ড্রয়েড ওএস থেকে নিজের কাস্টম স্কিনটিকে আলাদা করার চেষ্টা করছে। শাওমি, চীনের বাইরে বিক্রি হওয়া ডিভাইসগুলির জন্য গুগলের পরিষেবার ওপর ব্যাপকভাবে নির্ভরশীল। তাহলে হঠাৎ কেনো এই ধরণের ভাবনা চিন্তা করছে সংস্থাটি?

বলা হচ্ছে, সাম্প্রতিক সময়ে গুগলের ডেটা সংগ্রহ পদ্ধতির ওপর পুঙ্খানুপুঙ্খ তদন্ত করা হচ্ছে। বছর দুয়েক আগে এই জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিনটি, ডেটা সার্ফেসিংয়ের কারণে বিতর্কের মুখে পড়েছিল। এদিকে শাওমি, তার ইউজারদের ডেটার সম্পূর্ন সুরক্ষা দেওয়ার দাবি করে। তাই হতে পারে, ডেটা প্রাইভেসির জন্যই আগামী দিনে এমন বড়সড় সিদ্ধান্ত নিতে পারে চীনা সংস্থাটি।

আবার, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের বর্তমান প্রযুক্তিগত লড়াইয়ের জেরেও, শাওমি, নিজের আলাদা অপারেটিং সিস্টেম তৈরী করার কথা ভাবছে, এই সম্ভাবনাও উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছেনা।

শাওমি, তার Mi Community ফোরামের একটি বিস্তারিত পোস্টে ইউজারদের কিছু সমস্যা হাইলাইট করেছে, যেখানে দেখা গেছে গুগলের অ্যান্ড্রয়েড ওএসের সমস্যার কারণে প্রশ্নের মুখে পড়েছে MIUI। গুগলের কাছে সমস্যাগুলি জানালেও তারা কর্ণপাত করছে না। ফলে শাওমির পক্ষে সম্ভব হচ্ছে না সমস্যাগুলি কাটিয়ে ওটা। তাই সংস্থাটি, তার কমিউনিটি ফোরামে একটি পোল তৈরি করেছে, যেখানে তিনটি অপশন দিয়ে তারা ইউজারদের মতামত জানতে চেয়েছে। এই অপশনগুলি হল –

১. সিকিউরিটি এবং প্রাইভেসির কারণে MIUI-কে আলাদা অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে আনা হবে কিনা।
২. Xiaomi, গুগলের অ্যান্ড্রয়েড ওএসের ওপর ভিত্তি করে MIUI-তে পাওয়া ইস্যুগুলির সমাধান করবে কিনা।
৩. ইউজাররা, অ্যান্ড্রয়েড বা প্রাইভেসি ইস্যুগুলি থাকা সত্ত্বেও স্বচ্ছন্দে আছেন কিনা।

ওই পোস্টে এখনো অবধি ১৫০টিরও বেশি ভোট পড়েছে। তবে এই পোস্ট থেকে একটি ব্যাপার স্পষ্ট হচ্ছে যে, শাওমি আলাদা অপারেটিং সিস্টেম আনার বিষয়েও ভাবতে শুরু করেছে।

ইতিমধ্যে, আর একটি জনপ্রিয় চীনা কোম্পানি Huawei, তার ডিভাইসগুলির জন্য আলাদা অপারেটিং সিস্টেম নিয়ে এসেছে। হয়তো আগামী দিনে শাওমি-ও একই পথেই হাঁটতে চলেছে। এই প্রসঙ্গে জানিয়ে রাখি, শাওমির নতুন কাস্টম স্কিন MIUI 12 – প্রথম স্মার্টফোন ওএস, যা এনহ্যান্সড প্রাইভেসি প্রোটেকশন সার্টিফিকেশন পেয়েছে। যাইহোক, এখন দেখার বিষয় এটাই, আগামী দিনে সংস্থাটি সত্যিই গুগলের সাথে সম্পর্ক ছিন্ন করে কিনা!