ভুলে যান সস্তায় শাওমি রেডমি ফোনের কথা, ফের দাম বাড়ানোর ইঙ্গিত

শাওমির তরফ থেকে খুবই কম দামে ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোন পাওয়ার দিন হয়তো এবারে শেষ হতে চলেছে। Xiaomi ছাড়াও আরো বেশ কয়েকটি চীনের মোবাইল ব্র্যান্ড ভারতে অনেক কম দামে ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোন নিয়ে আসে। যার ফলে এই স্মার্টফোনগুলির দাম বেশ কয়েকটি ক্ষেত্রে স্যামসাং অথবা অ্যাপেলের ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোনের দামের প্রায় ১/৩ অংশ হয়ে যায়। কিন্তু এখন আর তা সম্ভব হবে না বলেই মনে করা হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার Xiaomi ইন্ডিয়ার মার্কেটিং হেড অনুজ শর্মা টুইট করে জানান, এই সময় বেড়ে যাওয়া জিএসটি হার, এক্সচেঞ্জ ভ্যালু, এবং মোবাইলের ভেতরের জিনিসের দাম বেড়ে যাওয়ার কারণে এখন থেকে আর কমদামে ফ্ল্যাগশিপ নিয়ে আসা বেশ কঠিন হয়ে দাঁড়িয়েছে। 

স্মার্টফোন বিশেষজ্ঞদের মতে চীনের একটি ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোনে ন্যূনতম একটি ফ্ল্যাগশিপ প্রসেসর থাকা অত্যন্ত প্রয়োজন। এবং সেই ফ্ল্যাগশিপ প্রসেসর থাকলেই এই মোবাইল ফোনটির দাম অনেকটা বেড়ে যায়। ভারতে যেকোনো ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোনের দাম ন্যূনতম ৩০,০০০ টাকা হওয়া উচিত যাতে ন্যূনতম একটি কোয়ালকম ফ্ল্যাগশিপ প্রসেসর থাকে।

তবে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই কোয়ালকমের ফ্ল্যাগশিপ চিপসেট থাকা সত্বেও শাওমি জাতীয় চীনের মোবাইল ব্র্যান্ড ভারতে ৩০,০০০ টাকার কম রেঞ্জে স্মার্টফোন নিয়ে আসে। উদাহরণস্বরূপ আপনি Redmi K20 Pro এর কথা বলতে পারেন। এখানে কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৮৫৫ প্রসেসর ব্যবহার করা হয়েছে, কিন্তু দাম রাখা হয়েছে কেবল ২৬,৯৯৯ টাকা। অন্যান্য কোম্পানি এই প্রসেসরের সাথে যে ফোন এনেছে তার দাম কম করে ৪০,০০০ টাকা।

ইতিমধ্যেই মোবাইল ফোনের উপর জিএসটির হার বৃদ্ধি হওয়ার কারণেও স্মার্টফোনের দাম অনেকটা বেড়ে গিয়েছে। যেখানে শাওমির স্মার্টফোনের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে ১,০০০ টাকা সেখানেই Apple এবং Samsung স্মার্টফোনের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে ৩,৪০০ এবং ৩,৬০০ টাকা।