সুখবর, বাজার কাঁপাতে ৮ ফেব্রুয়ারি গ্লোবাল মার্কেটে লঞ্চ হবে Xiaomi Mi 11

xiaomi-mi-11-global-launch-date-announced-on-8-february-with-miui-12-5-custom-skin.jpg

ডিসেম্বরের শেষে চীনে লঞ্চ হয়েছিল Xiaomi Mi 11। তারপর থেকেই শোনা যাচ্ছিলো ফোনটি ফেব্রুয়ারিতে গ্লোবাল মার্কেটে লঞ্চ হবে। আজ শাওমির তরফেও জল্পনার অবসান ঘটিয়ে Mi 11 এর গ্লোবাল লঞ্চ ডেট ৮ ফেব্রুয়ারি ঘোষণা করা হল। এই ফ্ল্যাগশিপ ফোনের সাথে শাওমি ওইদিন MIUI 12.5 কাস্টম স্কিন কে গ্লোবাল মার্কেটে লঞ্চ করবে। মি ১১ ফোনের কথা বললে, এটি স্ন্যাপড্রাগন ৮৮৮ প্রসেসরের প্রথম স্মার্টফোন হিসাবে লঞ্চ হয়েছিল। এছাড়াও এই ফোনে আছে ৬.৮১ ইঞ্চি ফুল অ্যামোলেড কার্ভড ডিসপ্লে, ১০৮ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি সেন্সর যুক্ত ট্রিপল ক্যামেরা সেটআপ।

Xiaomi তাদের টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে জানিয়েছে, ৮ ফেব্রুয়ারি ২০:০০ (জিএমটি +৮) সময় এই ফোনটিকে গ্লোবাল মার্কেটে লঞ্চ করা হবে। ফোনটি সিনেমা প্রেমীদের জন্য আদর্শ বলে টুইটে দাবি করা হয়েছে। যদিও এছাড়া এর স্পেসিফিকেশন বা দাম সম্পর্কে কিছু বলা হয়নি।

প্রসঙ্গত চীনে এমআই ১১-এর দাম শুরু হয়েছে ৩,৯৯৯ ইউয়ান ( প্রায় ৪৫,০০০ টাকা থেকে)। এই দাম ফোনটির ৮ জিবি র‌্যাম ও ১২৮ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজের। এছাড়াও ফোনটি ৮ জিবি র‌্যাম ও ২৫৬ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজ এবং ১২ জিবি র‌্যাম ও ২৫৬ জিবি স্টোরেজের দাম যথাক্রমে ৪,২৯৯ ইউয়ান (প্রায় ৪৮,৩০০ টাকা) এবং ৪,৬৯৯ ইউয়ান (প্রায় ৫২,৮০০ টাকা)। ফোনটি চারটি কালারে লঞ্চ হয়েছিল- ব্ল্যাক, হোয়াইট, ব্লু ও হোয়াইট।

Mi 11 এর স্পেসিফিকেশন

এমআই ১১ ফোনে আছে কোয়ালকমের লেটেস্ট স্ন্যাপড্রাগন ৮৮৮ প্রসেসর। সাথে দেওয়া হয়েছে ইন ডিসপ্লে অপটিক্যাল ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর আছে যা হার্ট রেট মনিটর হিসেবেও কাজ করবে। ফোনটি ৪,৬০০ এমএএইচ ব্যাটারির সাথে এসেছে, যার সাথে Mi TurboCharge ৫৫ ওয়াট ওয়্যারড ফাস্ট চার্জিং এবং ৫০ ওয়াট ওয়্যারলেস চার্জিং সাপোর্ট করবে।

Mi 11 ফোনে আছে ৬.৮১ ইঞ্চি ফুল অ্যামোলেড WQHD (৩২০০x১৪৪০) রেজোলিউশনের কার্ভড ডিসপ্লে। এই ডিসপ্লের রিফ্রেশ রেট ১২০ হার্টজ ও টাচ স্যাম্পেলিং রেট ৪৮০ হার্টজ। এছাড়াও এই ফোনের ডিসপ্লেতে ব্যবহার করা হয়েছে কর্নিং গোরিলা গ্লাস ভিক্টাস প্রোটেকশান, যা Samsung Galaxy Note 20-এর পরে কোনো ফোনে ব্যবহার করা হল। এই ফোনের ডিসপ্লে ডিজাইন পাঞ্চ হোল, যার মধ্যে ২০ মেগাপিক্সেলের (এফ/২.৪ অ্যাপারচার) সেলফি ক্যামেরা দেওয়া হয়েছে।

মি ১১ ফোনের পিছনে তিনটি ক্যামেরা দেওয়া হয়েছে। এই ক্যামেরাগুলি হল ১০৮ মেগাপিক্সেলের প্রাইমারি সেন্সর + ১২৩ ডিগ্রী ফিল্ড অফ ভিউযুক্ত ১৩ মেগাপিক্সেলের ওয়াইড-অ্যাঙ্গেল লেন্স + ৫ মেগাপিক্সেলের ম্যাক্রো ক্যামেরা। এই ক্যামেরায় সুপার নাইট সিন মোড আছে যেখানে নাইড মোড ব্যবহার করে স্বল্প আলোতেই ভিডিও রেকর্ড করা যাবে। এছাড়া প্রফেশনাল মোডের সাথে 8K ভিডিও রেকর্ডিং, ভিডিও লগ মোড, HEIF ফরম্যাট সাপোর্ট, সিনেমাটিক লেন্স, এবং অসংখ্য ক্লাসিক মুভি ফিল্টার রয়েছে।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন