চার্জার ছাড়াই লঞ্চ হল Xiaomi Mi 11, আছে স্ন্যাপড্রাগন ৮৮৮ প্রসেসর

xiaomi-mi-11-launched-price-starting-cny-3999-with-snapdragon-888-soc

অবশেষে লঞ্চ বহু প্রতীক্ষিত Mi 11। বিশ্বের প্রথম কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৮৮৮ প্রসেসর যুক্ত এই ফোনকে আজ Xiaomi তাদের ঘরেলু মার্কেটে লঞ্চ করেছে। তবে আপনি যদি মনে করেন মি ১১ এর চমক বলতে কেবল কোয়ালকমের এই লেটেস্ট প্রসেসরের উপস্থিতি, তবে আপনি ভুল। অ্যাপলের দেখানো পথে শাওমিও তাদের Mi 11 এর স্ট্যান্ডার্ড ভার্সনে কোনো চার্জার দেয়নি। যদিও বান্ডেল ভার্সনে আপনি চার্জার পেয়ে যাবেন। এছাড়াও মি ১১ এর অন্যান্য বিশেষ ফিচারগুলি হল 2K রেজোলিউশন যুক্ত কার্ভাড এজ ডিজাইন ডিসপ্লে, ৪,৬০০ এমএএইচ ব্যাটারি, ইন ডিসপ্লে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর ও ১০৮ মেগাপিক্সেল ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ।

Xiaomi Mi 11 এর দাম

শাওমি এমআই ১১-এর দাম শুরু হয়েছে ৩,৯৯৯ ইউয়ান ( প্রায় ৪৫,০০০ টাকা থেকে)। এই দাম ফোনটির ৮ জিবি র‌্যাম ও ১২৮ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজের। আবার এর ৮  জিবি র‌্যাম ও ২৫৬ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজের দাম ৪,২৯৯ ইউয়ান (প্রায় ৪৮,৩০০ টাকা)। ফোনটির ১২ জিবি র‌্যাম ও ২৫৬ জিবি স্টোরেজযুক্ত মডেলের দাম পড়বে ৪,৬৯৯ ইউয়ান (প্রায় ৫২,৮০০ টাকা)। ফোনটির আজ থেকেই প্রি-অর্ডার শুরু হচ্ছে। এটি ব্ল্যাক, হোয়াইট, ব্লু ও হোয়াইট কালারে উপলব্ধ হবে। এছাড়া এর ১২ জিবি র‌্যাম ও ২৫৬ জিবি স্টোরেজযুক্ত মডেলটি একটি স্পেশাল এডিশনে আসবে। বিশেষত্ব হিসেবে এখানে থাকবে শাওমির সিইও লেই জুনের অটোগ্রাফ। জানিয়ে রাখি ফোনটির স্ট্যান্ডার্ড ও বান্ডেল ভার্সনের দাম একই। Mi 11 অন্যান্য মার্কেটে কবে লঞ্চ হবে তা এখনও জানা যায়নি।

Xiaomi Mi 11 এর স্পেসিফিকেশন

শাওমি এমআই ১১ ফোনে WQHD (৩২০০x১৪৪০) রেজোলিউশনের ৬.৮১ ইঞ্চি ফুল অ্যামোলেড কার্ভড ডিসপ্লে দেওয়া হয়েছে। এর রিফ্রেশ রেট ১২০ হার্টজ, সর্বোচ্চ ব্রাইটনেস ৫১৫ পিপিআই এবং টাচ স্যাম্পেলিং রেট ৪৮০ হার্টজ। ডিসপ্লেতে কর্নিং গোরিলা গ্লাস ভিক্টাস প্রোটেকশান রয়েছে। Samsung Galaxy Note 20-এর ওপর এটি হল পৃথিবীর দ্বিতীয় স্মার্টফোন যেখানে এই গোরিলা গ্লাস প্রটেকশান দেওয়া হয়েছে।

স্ক্রিনের দিক থেকে Mi 11 এখন বিশ্বের অন্যতম সেরা স্মার্টফোনগুলির মধ্যে অন্যতম। Xiaomi দাবী করেছে যে, স্ক্রিন অ্যানালিসিস ফার্ম DislplayMate ফোনটির স্ক্রিনকে A+ রেটিং দিয়েছে। Mi 11-এর ডিসপ্লে DCI-P3 কালার গামুট, HDR10, এবং Motion Estimation, Motion Compensation (MEMC) সাপোর্ট করবে। ফোনের ডিসপ্লে ডিজাইন পাঞ্চ হোল, যার মধ্যে ২০ মেগাপিক্সেলের (এফ/২.৪ অ্যাপারচার) সেলফি ক্যামেরা দেওয়া হয়েছে।

এই ফোনের পিছনে আছে ট্রিপল ক্যামেরা সেটআপ। যেখানে প্রাইমারি ক্যামেরা হিসাবে রয়েছে ১০৮ মেগাপিক্সেলের সেন্সর (এফ/১.৮ অ্যাপারচার)। অন্য দুটি ক্যামেরা হল ১২৩ ডিগ্রী ফিল্ড অফ ভিউযুক্ত ১৩ মেগাপিক্সেলের ওয়াইড-অ্যাঙ্গেল লেন্স (এফ/২.৪ অ্যাপারচার), ও ৫ মেগাপিক্সেলের ম্যাক্রো ক্যামেরা (এফ/২.৪ অ্যাপারচার)। ফোনটির ক্যামেরা অ্যাপ্লিকেশনে এমন কিছু ফিচার আছে যা অন্যান্য কোনো ফোনে খুঁজে পাওয়া যাবে না। এখানে সুপার নাইট সিন মোড আছে যেখানে নাইড মোড ব্যবহার করে স্বল্প আলোতেই ভিডিও রেকর্ড করা যাবে। এছাড়া প্রফেশনাল মোডের সাথে 8K ভিডিও রেকর্ডিং, ভিডিও লগ মোড, HEIF ফরম্যাট সাপোর্ট, সিনেমাটিক লেন্স, এবং অসংখ্য ক্লাসিক মুভি ফিল্টার রয়েছে।

Mi 11 ফোনে ব্যবহার করা হয়েছে কোয়ালকমের লেটেস্ট স্ন্যাপড্রাগন ৮৮৮ প্রসেসর। সাথে আছে ১২ জিবি পর্যন্ত র‌্যাম ও ২৫৬ জিবি পর্যন্ত ইন্টারনাল স্টোরেজ অপশন। এতে ইন ডিসপ্লে অপটিক্যাল ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর আছে যা হার্ট রেট মনিটর হিসেবেও কাজ করবে। তবে এটি মেডিক্যালি অনুমোদিত নয় বলেই মনে হচ্ছে।

এই ফোনে ৪,৬০০ এমএএইচ ব্যাটারি দেওয়া হয়েছে, যা Mi TurboCharge ৫৫ ওয়াট ওয়্যারড ফাস্ট চার্জিং এবং ৫০ ওয়াট ওয়্যারলেস চার্জিং সাপোর্ট করবে। এতে আবার ১০ ওয়াট ওয়্যারলেস রিভার্স চার্জিং সাপোর্টও রয়েছে। এছাড়া এটি ক্যুইক চার্জ ৪+, ক্যুইক চার্জ ৩+, এবং পাওয়ার ডেলিভারি ৩.০ সাপোর্ট করবে।

দুর্দান্ত সাউন্ডের জন্য মি ১১ ফোনে আছে হারমান কার্ডন স্টিরিও স্পিকার। এছাড়া ফোনের অন্যান্য ফিচারের মধ্যে আছে ডুয়াল 5G ন্যানো-সিম সাপোর্ট, R ব্লাস্টার, ওয়াইফাই ৬, ব্লুটুথ ৫.২, NFC। ফোনটি চলবে অ্যান্ড্রয়েড ১১ বেসড এমআইইউআই ১২ ইন্টারফেসে। Mi 10-এর সাথে তুলনায় আসলে তুলনায় Mi 11 আরও পাতলা ও হালকা। Mi 11-এর ওজন ১৯৬ গ্রাম ও এটি ৮.০৬ মিমি সরু।