3 মিনিটে 50 শতাংশ চার্জ, Xiaomi ও Oppo বাজারে আনছে 200W ফাস্ট চার্জিং প্রযুক্তি

টিপস্টার ডিজিট্যাল চ্যাট স্টেশন জানিয়েছেন, শাওমি ও ওপ্পো - এই দুই চীনা সংস্থা এই মুহুর্তে ২০০ ওয়াট চার্জিং সলিউশন নিয়ে পরীক্ষা করছে

xiaomi-oppo-commercialize-200w-fast-charging-technology-soon

দ্রুততম চার্জিং প্রযুক্তির ওপর বর্তমানে একাধিক স্মার্টফোন সংস্থা কাজ করছে। ইনফিনিক্স (lnfinix) ইতিমধ্যেই তাদের ১৬০ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং প্রযুক্তি জনসমক্ষে এনেছে। চীনা সংস্থা শাওমিও বেশ কয়েকমাস আগে তাদের ২০০ ওয়াট হাইপারচার্জ ফাস্ট চার্জিং (Hypercharge Fast Charging) সিস্টেমের উপর থেকে পর্দা সরিয়েছে। যদিও কয়েকটি নিরাপত্তা জনিত কারণে এখনও এই চার্জিং সিষ্টেম বাণিজ্যিক ব্যবহারের জন্য সম্পূর্ণ প্রস্তুত নয় বলেই জানা যাচ্ছিল। তবে এখন এক জনপ্রিয় চীনা টিপস্টার দাবি করেছেন ২০০ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং প্রযুক্তিকে শীঘ্রই বাণিজ্যিকীকরণ করা হবে।

Xiaomi ও Oppo-র ফোনে কি দেখা যাবে 200W ফাস্ট চার্জিং সিস্টেম?

টিপস্টার ডিজিট্যাল চ্যাট স্টেশন (Digital Chat Station) জানিয়েছেন, শাওমি ও ওপ্পো – এই দুই চীনা সংস্থা এই মুহুর্তে ২০০ ওয়াট চার্জিং সলিউশন নিয়ে পরীক্ষা করছে। আশা করা হচ্ছে এই সংস্থাগুলি বাণিজ্যিক ব্যবহারের জন্য ২০০ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং প্রযুক্তি বাজারে আনবে। অর্থাৎ আসন্ন শাওমি বা ওপ্পো ফোনগুলি ২০০ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং অ্যাডাপ্টার সহ বাজারে পা রাখতে পারে অথবা নিদেনপক্ষে আলাদাভাবে ২০০ ওয়াট অ্যাডাপ্টার বিক্রির জন্য বাজারে উপলব্ধ হতে পারে।

জানিয়ে রাখি, পূর্বে শাওমি তাদের ২০০ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং প্রযুক্তিকে Xiaomi Mi 11 Pro ফোনের ওপর প্রদর্শন করে দেখিয়েছিল। সেখানে এই দ্রুততম চার্জিং প্রযুক্তির মাধ্যমে ৮ মিনিটের মধ্যে ফোনের ৪,০০০ এমএএইচ ব্যাটারির ১০০ শতাংশ চার্জ সম্পূর্ন হয়, আর ৫০ শতাংশে যেতে মাত্র ৩ মিনিট এবং ১০ শতাংশ হতে মাত্র ৪৪ সেকেন্ড সময় নেয়।

প্রসঙ্গত, বাণিজ্যিক ব্যবহারের জন্য এই ফাস্ট চার্জিং প্রযুক্তিটি কবে উপলব্ধ হবে সে বিষয়ে এখনও নিশ্চিতভাবে কিছু জানা যায়নি। তবে পূর্বে প্রকাশিত একটি রিপোর্ট থেকে বলা হয়েছে যে, শাওমি এই বছরের দ্বিতীয় ত্রৈমাসিক থেকে ২০০ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং সলিউশনের গণউৎপাদন শুরু করতে পারে।

অন্যদিকে ওপ্পো আগেই ১২৫ ওয়াট ওয়্যার্ড ফাস্ট চার্জিং প্রযুক্তির গণ উৎপাদন শুরু করেছে বলে শোনা যাচ্ছে। ডুয়েল-সেল ব্যাটারি দিয়ে প্রযুক্তিটির পরীক্ষা করা হয়েছে এবং ব্যাটারির সুরক্ষা সনাক্তকরণ করার চিপগুলির সাহায্যে স্মার্ট চার্জিং প্রযুক্তি প্রয়োগ করা হয়েছে। তাই মনে করা হচ্ছে এই চীনা সংস্থাটিও শাওমির থেকে খুব একটা পিছিয়ে নেই।

টেকগাপের মেম্বাররা ও সদ্য যোগ দেওয়া লেখকরা এই প্রোফাইলের মাধ্যমে টেকনোলজির সমস্ত রকম খুঁটিনাটি আপনাদের সামনে আনে।