Apple কে সরিয়ে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম স্মার্টফোন ব্র্যান্ডে পরিণত হল Xiaomi, প্রথমে কে জানুন

xiaomi-ranks-second-replace-apple-in-global-smartphone-market-samsung-top-canalys
Xiaomi বিশ্ব দ্বিতীয় সেরা স্মার্টফোন নির্মাতা

ভারতের বাজারে Xiaomi-র জনপ্রিয়তা আকাশ ছুঁয়েছিল আগেই! তবে এই বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে চীনা প্রযুক্তি জায়ান্টটি, বিশ্ববাজারেও বিশেষ স্বীকৃতি পেয়েছে। ক্যানালিস রিসার্চের সর্বশেষ রিপোর্ট অনুযায়ী, প্রিমিয়াম ডিভাইস নির্মাতা Apple-কে পেছনে ফেলে এবার বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম স্মার্টফোন সংস্থাতে পরিণত হয়েছে Xiaomi (শাওমি)। উল্লিখিত সময়ে, সংস্থাটির শিপমেন্ট ৮৩ শতাংশে পৌঁছেছে বলে জানা গিয়েছে।

Xiaomi বিশ্ব দ্বিতীয় সেরা স্মার্টফোন নির্মাতা

গ্লোবাল মার্কেটে সেরা ফোন বিক্রেতা হিসেবে এতদিন তালিকার প্রথম ও দ্বিতীয় স্থানে, ঘুরিয়ে ফিরিয়ে আসত Samsung (স্যামসাং) এবং Apple (অ্যাপল)-এর নাম। কিন্তু এই প্রথমবার দুটি বড় সংস্থার মাঝে নিজের জায়গা করে নিয়েছে শাওমি। যদিও এর আগে, ঠিক একইভাবে চীনা সংস্থা Huawei (হুয়াওয়ে)-ও কিছু সময়ের জন্য অ্যাপলকে ছাড়িয়ে দ্বিতীয় স্থান অধিকার করেছিল; কিন্তু তারপরেই তারা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে নিষেধাজ্ঞার মুখোমুখি হয়।

ক্যানালিস রিসার্চের মতে, বছরের দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে ১৯% মার্কেট শেয়ার নিয়ে স্যামসাং বিশ্বের এক নম্বর স্মার্টফোন ব্র্যান্ডের জায়গা ধরে রেখেছে। অন্যদিকে, দ্বিতীয় স্থানাধিকারী শাওমি ১৭ শতাংশ মার্কেট শেয়ার অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে। মূলত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রসহ বৈদেশিক বাজারগুলিতে, আকর্ষণীয় দামের বেশ কয়েকটি হাই-স্পেসিফিকেশন স্মার্টফোন চালু করার কারণে সংস্থার সাফল্য বেড়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। সেক্ষেত্রে বলে রাখি, বিশ্বের অন্যতম স্মার্টফোন বিক্রেতা অ্যাপেল আগের তিনমাসে স্মার্টফোন শিপিং করে বাজারের ১৪% শেয়ার অর্জন করেছে। যেখানে Oppo (ওপ্পো) এবং Vivo (ভিভো) উভয়েই ১০ শতাংশ শেয়ারের সাথে তালিকায় চতুর্থ এবং পঞ্চম স্থান অধিকার করেছে।

এই বিষয়ে ক্যানালিসের রিসার্চ ম্যানেজার বেন স্ট্যান্টন বলেছেন যে, স্যামসাং এবং অ্যাপলের তুলনায় শাওমির ডিভাইসের গড় বিক্রয় মূল্য যথাক্রমে ৪০ শতাংশ এবং ৭৫ শতাংশ কম। এক্ষেত্রে তুলনামূলক সস্তায় মেলায় সংস্থার হাই-এন্ড Mi 11 Ultra ফোনটির বিক্রি বেশ বেড়েছে। তাছাড়া রিপোর্ট বলছে, লাতিন আমেরিকাতে Mi 11 সিরিজটির শিপমেন্ট ৩০০ শতাংশ বেড়েছে। যেখানে আফ্রিকাতে এগুলির বিক্রয় ১৫০ শতাংশ এবং পশ্চিম ইউরোপে ৫০ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে।

যাইহোক, এখন দেখার বিষয় এটাই যে শাওমি তার এই সাফল্য ধরে রাখতে পারে কিনা। তাছাড়া আগামী সময়ে ওপ্পো এবং ভিভোর মত প্রতিদ্বন্দ্বী সংস্থা, শাওমির জায়গা ছিনিয়ে নেয় কিনা বা হারানো জায়গা ফিরে পেতে অ্যাপল কী পদক্ষেপ নেয় – তাও এখন চর্চার অন্যতম বিষয় হয়ে থাকবে।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন

A person who enjoys creating, buying, testing, evaluating and learning about new technology.