স্মার্টফোনের বাজার কাঁপিয়ে এবার গাড়ির দুনিয়াতেও পা রাখছে Xiaomi?

xiaomi-refuse-any-car-project-development-rumor

সম্প্রতি, টেকজায়েন্ট Apple এর ইলেকট্রিক কার প্রোজেক্ট নিয়ে লেখালেখি হয়েছিল প্রচুর। চারচাকা ইলেকট্রিক গাড়ি তৈরি করার জন্য হুন্ডাই এবং অ্যাপলের মধ্যে কথাবার্তা নাকি প্রায় পাকা, এমন জল্পনা চললেও শেষমুহুর্তে শোনা যায়, দুই সংস্থার মধ্যে নাকি ইতিবাচক কোনো আলোচনা হয় নি। অ্যাপলের গাড়ি বানানোর চুক্তি নিয়ে হুন্ডাইয়ের আধিকারিকরা নাকি দ্বিধাবিভক্ত ছিলেন। যাইহোক, অ্যাপলের গাড়ির খবর একটু ম্লান হতেই এবার সংবাদের শিরোনামে জনপ্রিয় স্মার্টফোন নির্মাতা শাওমি (Xiaomi)। শোনা যাচ্ছে, স্মার্টফোন বাজার কাঁপিয়ে চীনা সংস্থাটি এবার গাড়ির দুনিয়াতেও পা রাখার কথা ভাবছে।

রিপোর্ট বলছে, শাওমি নিজস্ব গাড়ি তৈরির কথা পরিকল্পনা করছে এবং এটি কৌশলগত সিদ্ধান্ত হিসাবে সংস্থাটি বিবেচনা করছে। পুরো বিষয়টি সর্ম্পকে অবগত এমন সূত্র উদ্ধৃত করে iFengnews তাদের একটি রিপোর্ট বলেছে, শাওমি নিজস্ব গাড়ির সূচনা করার কথা ভাবছে, তবে কোম্পানি নতুন ভেঞ্চারে কোন পথে বা কীভাবে প্রবেশ করবে তা এখনও মনস্থির করা বাকি।

নতুন প্রোজেক্টে কে নেতৃত্ব দেবেন তা অবশ্য আমাদের অজানা নয়। শাওমির বর্তমান সিইও লেই জুন (Lei Jun) থাকবেন পুরো বিষয়টির দায়িত্বে। প্রসঙ্গত, ২০১৩ সালে টেসলার কর্ণধার ইলন মাস্কের সাথে সাক্ষাত করার জন্য জুন দু’বার আমেরিকা গিয়েছিলেন। মাস্কের সান্নিধ্যে এসে জুন গাড়ি ব্যবসায় নামার অনুপ্রেরণা পেয়েছিলেন কীনা তা আমরা জানিনা। তবে অটোমোবাইল সেগমেন্টে শাওমির আগ্রহ এখন স্পষ্টত বোঝা যাচ্ছে।

রিপোর্টে আরও বলা হয়েছে, অন্য সেগমেন্টে শাওমির প্রবেশের পিছনে অন্যতম কারণ হল স্মার্টফোন বাজারের স্ট্যাগনেশন বা শ্লথ বৃদ্ধির হার। সুতারাং শাওমি গাড়ির উৎপাদন শুরু করলে তাতে অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না৷ তবে গাড়ি নিয়ে যে এত আলোচনা, খোদ শাওমি কী বলছে এই নিয়ে? জল্পনার অবসান ঘটিয়ে শাওমি অফিসিয়ালি জানিয়েছে, এই ধরনের প্রকল্পে তারা এখনও কোনো অনুমোদন দেয়নি। তবে শাওমি বলেছে তারা বিষয়টি দেখছে এবং অপেক্ষা করবে। সেক্ষেত্রে সুদূর ভবিষ্যতে গাড়ি ব্যবসাতে শাওমির পা রাখার সম্ভাবনা একেবারে উড়িয়ে দেওয়া যায়না।

প্রসঙ্গত, সপ্তাহ দুই আগে Mi 11-এর গ্লোবাল লঞ্চ ইভেন্টে, Xiaomi তার এই ফ্ল্যাগশিপ ফোনের পাশাপাশি Mi Electric Pro 2 Mercedis-AMG Petronas FI Team Edition ফোল্ডেবল স্কুটার লঞ্চের ঘোষণা করেছিল। স্কুটারটির টপ স্পিড ২৫ কিমি/ঘন্টা। এটি আবার ফুল চার্জে ৯ ঘন্টা পর্যন্ত চলে।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন