ছবি তোলার সময় বার হয়ে আসবে লেন্স, রিট্র্যাক্টেবল টেলিস্কোপ ক্যামেরার ওপর কাজ করছে Xiaomi

উৎকৃষ্ট মানের ক্যামেরা যে কোন স্মার্টফোনের বাজারদর বাড়িয়ে দেওয়ার পক্ষে যথেষ্ট। সেই কারণেই স্মার্টফোন প্রস্তুতকারক সংস্থাগুলি প্রতিনিয়ত ক্যামেরার উৎকর্ষসাধনে জোর দেয়। প্রখ্যাত চীনা সংস্থা Xiaomi এর ডেভেলপার দল এবার তাদের ক্যামেরা সংক্রান্ত নতুন কয়েকটি ভাবনার কথা সামনে আনলো। Mi Developers Conference (MiDC) চলাকালীন তারা তাদের নতুন স্মার্টফোনে টেলিস্কোপিক ক্যামেরার অন্তর্ভুক্তির কথা জানিয়েছে। এথেকে স্পষ্ট যে শাওমি, ক্যামেরা টেকনোলজি উন্নতির ওপর ব্যাপক জোর দিচ্ছে।

কনফারেন্সে জানানো হয়েছে, শাওমির রিসার্চ এবং ডেভেলপমেন্ট টিম টেলিস্কোপিক ক্যামেরা টেকনোলজির ওপর কাজ করছে, যার ডিজাইন হবে রিট্র্যাক্টেবল (সঙ্কোচন-প্রসারণক্ষম)। এতে পেরিস্কোপিক লেন্স ব্যবহার করা হবে, যা ৩০০ শতাংশ অধিক লাইট ইনপুট এবং ২০ শতাংশ বেশী স্বচ্ছতা প্রদান করবে।

শাওমি গ্রুপের ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং মোবাইল ফোন ডিপার্টমেন্টের প্রেসিডেন্ট Zeng Xuezhong জানিয়েছেন, “শাওমি ট্র্যাডিশনাল ক্যামেরা থেকে অনুপ্রেরণা নিয়ে একটি রিট্র্যাক্টেবল লেন্স টেকনোলজি ডেভেলপ করছে।”

রিট্র্যাক্টেবল বা সংকোচন-প্রসারণক্ষম হওয়ার সাথে সাথে শাওমির নতুন ক্যামেরা বৃহৎ অ্যাপারেচার যুক্ত হবে। এর ফলে ক্যামেরার আলোক গ্রহণ ক্ষমতা উল্লেখযোগ্যভাবে বেড়ে যাবে। রাত্রিকালীন এবং স্বল্প আলোকে ফটোগ্রাফির ক্ষেত্রে এই নতুন বৈশিষ্ট্য দুর্দান্ত ফলাফল দেবে বলেই শাওমির ডেভেলপারদের বিশ্বাস।

এছাড়া এই নতুন ক্যামেরায় থাকবে উন্নত অ্যান্টি-শেক প্রযুক্তি, যা ছবির স্বচ্ছতাকে অনেকটাই বাড়িয়ে দেবে। এটি আগের তুলনায় ২০ শতাংশ বেশি শার্পনেস অফার করবে। ছবি তোলার সময় হাত কেঁপে গেলেও, ছবির মানে তার বিশেষ প্রভাব পড়বেনা।

এই ক্যামেরাটি কেমন হতে পারে তার একটি ডেমো ভিডিও সম্প্রতি প্রকাশ্যে এসেছে। জনৈক Weibo ব্যবহারকারীর এই ভিডিও অনুযায়ী, সাধারণভাবে টেলিস্কোপ লেন্স ছবি ফোনের মধ্যে থাকবে। তবে ছবি তোলার সময় স্বয়ংক্রিয়ভাবে লেন্সটি প্রসারিত হয়ে যাবে। গোটা প্রক্রিয়াটাই ঘটবে খুব দ্রুত এবং মসৃণভাবে।

অবশ্য ঠিক কবে এই নতুন প্রযুক্তির ক্যামেরা তাদের স্মার্টফোনে দেখা যাবে, সে বিষয়ে অবশ্য Xiaomi এখনই কিছু বলতে নারাজ। তাছাড়া কোন ফোনে সর্বপ্রথম এই বিশেষ ক্যামেরা ফিচারটি অন্তর্ভুক্ত হবে তারও নির্দিষ্টভাবে জানা যায়নি। তবে স্মার্টফোনে টেলিস্কোপিক রিট্র্যাক্টেবল লেন্স সংযোজনের পুরো ব্যাপারটাই যে যথেষ্ট সময়সাপেক্ষ, সে বিষয়ে কোন সন্দেহ নেই।