YouTube ক্রিয়েটরদের জন্য সুখবর, ‘লাইক’ দেখা গেলেও লুকানো যাবে ‘ডিসলাইক’ এর সংখ্যা

youtube-testing-dislike-number-hide-features

টেক জায়ান্ট গুগলের ভিডিও শেয়ারিং প্ল্যাটফর্ম, ইউটিউব (YouTube) এর জনপ্রিয়তা নিয়ে নতুন করে কিছু বলার নেই। দৈনিক অগুনিত দর্শক এবং কয়েক মিলিয়ন কনটেন্ট আপলোড হওয়া এই ভিডিও স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্মটি প্রতিনিয়তই তাদের অ্যাপ বা ওয়েব ভার্সনে কোনো না কোনো ফিচার যুক্ত করে চলেছে। সেক্ষেত্রে এবার অনলাইন ভিডিও শেয়ারিং প্ল্যাটফর্মটি ‘লাইক’ ও ‘ডিসলাইক’ বাটন সম্পর্কিত বহুবিতর্কিত একটি সমস্যা সমাধানের জন্য নতুন একটি ফিচার নিয়ে আসছে।

আসলে বহু সময় আমরা দেখে থাকি, কিছু ভিডিওতে লাইকের থেকে ডিসলাইক বেশি পরেছে। এরপর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ওই ভিডিও কে নিয়ে ট্রলের বন্যা বয়ে যায়। এই ডিসলাইক বাটনটিকে কাজে লাগিয়ে, নির্দিষ্ট কিছু ব্যক্তি বা চ্যানেলকে চয়ন করে তাদের অপদস্ত করার মাধ্যমে মজার কনটেন্ট তৈরি করাই এই ট্রল নির্মাণকারীদের মূল উদ্দেশ্য হয়ে থাকে। এই চক্করে ইউটিউবের ভিডিও নির্মাতাদের যথেষ্ট নাজেহাল হতে হয়। তাই ইউটিউব এই ইচ্ছাকৃত ডিসলাইক এর ঘটনা গুলিকে রুখতে হাইড ফিচার রোল আউট করতে চলেছে।

এই বিষয়ে Youtube একটি টুইটে জানিয়েছে যে, তারা নতুন একটি ফিচার নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করছে যা ভিডিওগুলিতে পরা ডিসলাইক -এর সংখ্যা দশর্কদের সামনে প্রকাশ করবে না। তবে ভিডিও নির্মাতারা ‘ইউটিউব স্টুডিও’ বিভাগে গিয়ে ভিডিওর বিষয়ে সব খুঁটিনাটি তথ্য পেয়ে যাবেন। তবে ভিডিওতে ডিসলাইক -এর সংখ্যা সর্বজনীনভাবে দৃশ্যমান না হওয়ার মানে এই নয় যে, ইউটিউব পুরোপুরিভাবে ডিসলাইক বাটনটিকে সরিয়ে দিচ্ছে। এই বাটনটি আগের মতোই বিদ্যমান থাকবে এবং ভিউয়ারা কোনও নির্দিষ্ট ভিডিওকে অপছন্দ করতেও সক্ষম হবেন।

বর্তমান দিনে, নির্দিষ্ট কিছু ব্যক্তি ও ব্র্যান্ড ছাড়াও, বিশ্বজুড়ে থাকা রাজনৈতিকবিদরা যথেষ্ট ফাঁপরে পড়েছে এই ডিসলাইক বাটনের কারণে। কারণ, তাদের রাজনৈতিক বক্তৃতা বা প্রচারের যে ভিডিওগুলি ইউটিউবে আপলোড করা হয়, সেগুলিতে লাইক এর থেকে ডিসলাইক পরে প্রায় ১০ গুন বেশি। ফলত ভিডিওর ডিসলাইক সংখ্যা দেখে তাদের বিব্রত বোধ করা অস্বাভাবিক নয়। তবে ডিসলাইক সংখ্যা কে গোপন করার প্রস্তাবের বিরোধীতা করে ইউটিউব ব্যবহারকারীরা টুইটারে জানিয়েছে, এইভাবে ইউটিউব তাদের দর্শকদের প্রকৃত মতামতকে চাপা দেওয়ার চেষ্টা করছে। যদিও সংস্থাটি সাফাই দিয়েছে, “দর্শকরা যারা এই পরীক্ষার অধীনে পড়ছেন তারা যে কোনও ভিডিও লাইক বা ডিজলাইক করতে পারবেন। এবং এ বিষয়ে ইউটিউব কর্তৃপক্ষের সাথে প্রতিক্রিয়া শেয়ার করতে পারবেন।”

প্রসঙ্গত এখনও YouTube এর কনটেন্ট ক্রিয়েটররা তাদের ভিডিওর লাইক ও ডিসলাইক সংখ্যা লুকিয়ে রাখতে পারেন। তবে এই ফিচারটি সক্রিয় করলে ডিসলাইক এর পাশাপাশি লাইক এর সংখ্যাও দেখা যায়না। সেক্ষেত্রে নতুন ফিচারে কেবল ডিসলাইক এর সংখ্যা কে লুকিয়ে রাখা যাবে।

হোয়াটসঅ্যাপে খবর পেতে এখানে ক্লিক করুন

টেকগাপের মেম্বাররা ও সদ্য যোগ দেওয়া লেখকরা এই প্রোফাইলের মাধ্যমে টেকনোলজির সমস্ত রকম খুঁটিনাটি আপনাদের সামনে আনে।