গোপন চ্যাটের জন্য সিকিউরিটি ফিচার আনছে WhatsApp, কীভাবে এটি কাজ করবে জেনে নিন

গোপন কথা থাকবে গোপনেই, আর সময় সময়ে তা চটজলদি খুঁজেও পাওয়া যাবে! শীঘ্রই WhatsApp আনছে নতুন সিকিউরিটি ফিচার।

চলতি বছরে WhatsApp একাধিক ফিচার এনে প্ল্যাটফর্মটিকে আপগ্রেড করেছে – তবে বিগত কয়েক সপ্তাহ ধরে সংস্থাটি চ্যানেল (Channel) ফিচারের কারণে চর্চায় রয়েছে। এই নতুন একমুখী যোগাযোগ ব্যবস্থাটিকে একদিকে যেমন জনপ্রিয় ব্যক্তিত্বরা স্বাগত জানিয়েছেন, তেমনি বহু সাধারণ ইউজার ইনস্ট্যান্ট মেসেজিং প্লাটফর্মটিকে সোশ্যাল মিডিয়ায় রূপান্তর করার কারণে বিরক্ত প্রকাশ করেছেন। সেক্ষেত্রে এইসবে থেমে না থাকে Meta মালিকানাধীন WhatsApp কিন্তু আবারও নতুন ফিচার আনতে নিজের মত কাজ করে চলেছে। সম্প্রতি শোনা যাচ্ছে যে খুব শীঘ্রই তারা ‘সিকিউরিটি কোড’ (Security Code) নামে একটি নতুন অপশন চালু করতে পারে, যা ইউজারদের আরও উন্নতমানের চ্যাট সিকিউরিটি এবং প্রাইভেসি অফার করবে। এবার আপনি প্রশ্ন করবেন, ইতিমধ্যেই তো চ্যাট লুকানোর জন্য WhatsApp ‘চ্যাট লক’ ফিচার উপলব্ধ করেছে, তাহলে নতুন কোড সিস্টেম এনে সংস্থা কী করতে চাইছে? এই প্রসঙ্গে বলি, কোম্পানি নতুন ‘সিকিউরিটি কোড’ ফিচার এনে WhatsApp ব্যবহারকারীদের সুরক্ষিত রাখতে চাইছে, যেখানে তারা নিজের ফোন অন্য কারও কাছে হস্তান্তর করার সময় তাদের ব্যক্তিগত চ্যাট গোপন রাখার জন্য নতুন বিকল্প পাবেন।
আসুন, এখন জেনে নিই WhatsApp-এর আসন্ন সিকিউরিটি কোড ফিচার কীভাবে কাজ করবে…

কাজ চলছে ‘সিকিউরিটি কোড’ ফিচার নিয়ে, কী চাইছে WhatsApp?

কার্যকারিতার কথা বললে, হোয়াটসঅ্যাপের নতুন সিকিউরিটি কোড ফিচার ইউজারদের লক করা চ্যাটে একটি কাস্টম পাসওয়ার্ড সেট করার সুবিধা দেবে। WABetaInfo-র রিপোর্ট অনুযায়ী, এটি আলাদাভাবে চ্যাট লক বা হাইড করার কোনো অপশন দেবেনা, বরঞ্চ এটি লক করা চ্যাটগুলি দ্রুত অ্যাক্সেস করার একটি উপায় হিসাবে কাজ করবে। এতে করে যারা নিজের গোপন চ্যাট লক করে লুকিয়ে রাখবেন, তারা একটি সিকিউরিটি কোড সেট করতে সক্ষম হবেন। আর, প্রয়োজনে তারা সেই কথোপকথন চটজলদি খুঁজে পেতে সার্চ বারে সিকিউরিটি কোডটি টাইপ করতে পারবেন। অর্থাৎ লকড্ চ্যাট খুলতেও বেশি ঝামেলা পোহাতে হবেনা। এক্ষেত্রে সিকিউরিটি কোড পাসওয়ার্ড, শব্দ থেকে শুরু করে ইমোজি ব্যবহার করে কাস্টমাইজ করা যেতে পারে।

তবে মনে রাখবেন, বর্তমানে সিকিউরিটি কোড ফিচারটি বিকাশাধীন পর্যায়ে রয়েছে, তাই এখনই এটি হোয়াটসঅ্যাপে ব্যবহার করা যাবেনা। বর্তমানে কেবল ফিঙ্গারপ্রিন্ট লক, পার্সোনাল চ্যাট লক এবং অ্যাপ লকের মতো সিকিউরিটি সিস্টেমই কাজে লাগানো যাবে।

কীভাবে WhatsApp-এ Chat Lock ফিচার কাজে লাগাবেন?

যারা হোয়াটসঅ্যাপের চ্যাট লক ফিচার সম্পর্কে অবগত নন, তাদের বলি সংস্থাটি ইউজারদের প্রতিটি স্বতন্ত্র চ্যাট আলাদা করে লক করা এবং সেটিকে চ্যাট স্ক্রিন থেকে লুকিয়ে রাখার অপশন দেয়। এই ফিচার এনাবেল করতে আগ্রহীদের নির্দিষ্ট একটি চ্যাট খুলতে হবে, তারপর চ্যাট ডিটেইলসে ক্লিক করলেই ফোন নম্বর, অ্যাবাউট স্ট্যাটাস, মিডিয়া অপশন ইত্যাদির পাশে ‘চ্যাট লক’ অপশন দেখা যাবে। একবার এই অপশন অন করলে এটি ডিফল্টরূপে নির্বাচিত চ্যাটে ফিঙ্গারপ্রিন্ট লক যুক্ত করে তা ডেডিকেটেড ফোল্ডারে সেভ রাখবে, যা পরে ইচ্ছেমতো অ্যাক্সেস করতে পারবেন ইউজাররা।