Car Mileage Tips: গাড়ি ভাল মাইলেজ দিচ্ছে না? এই 5 টিপস মেনে চললেই দেখবেন ম্যাজিক

গাড়ির মাইলেজ বেশি হলে, খুশি হবেন না, এমন কেউ আছেন বলে তো মনে হয় না! ইদানিং পেট্রোল ডিজেলের অগ্নিমূল্যের কারণে অনেকেই গাড়ির মাইলেজ যাতে বেশি পাওয়া যায়, সেদিকেই গুরুত্ব দিচ্ছেন। কিন্তু সে পথে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে নিত্যদিন বেড়ে চলা যানজট। এছাড়া কিছু সঠিক রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে, চালকের অলক্ষ্যে গাড়ির মাইলেজ ধীরে ধীরে কমতে আরম্ভ করে। ভাববেন না, মাইলেজ বাড়ানোর বেশ কিছু উপায় রয়েছে। সেগুলি ঠিকঠাক মেনে চললেই নতুন অবস্থার মতো মাইলেজ দিতে শুরু করবে গাড়ি। এই প্রতিবেদনে সেই টিপস দেওয়ার রইল।

টায়ার প্রেসার

গাড়ি থেকে ঠিকঠাক মাইলেজ পেতে হলে মৌলিক সর্বপ্রথম যেদিকে খেয়াল রাখতে হবে তা হচ্ছে খাওয়ার প্রেসার মাপ মতো থাকে। অনেকেই হয়তো জানেন না, টায়ারে যদি হাওয়া কম থাকে, সে ক্ষেত্রে কিন্তু ইঞ্জিনের ওপর চাপ পড়ে বেশি। ফলে জ্বালানি পোড়েও বেশি। কারণ কম হাওয়া থাকলে রাস্তায় চলার ক্ষেত্রে চাকার উপর রোধ বেড়ে যায়। টায়ারে হাওয়া পর্যাপ্ত থাকলে গাড়ি সাবলীলভাবে চলতে পারে। সেক্ষেত্রে মাইলেজ ভালো মেলে। তাই নির্দিষ্ট সময় অন্তর টায়ার প্রেসার চেক করা আবশ্যক।

ধীরে সুস্থে গাড়ি চালান

তাড়াহুড়ো করে গাড়ি চালালে হঠাৎ অ্যাক্সেলারেশন বাড়িয়ে দেওয়া ও ব্রেক কষার প্রয়োজন পড়ে। এর ফলে জ্বালানির খরচ বৃদ্ধি পায়। বরঞ্চ যদি রাস্তায় একটি নির্দিষ্ট গতিবেগ বজায় রাখা যায় সে ক্ষেত্রে মাইলেজ নিজে থেকেই বেড়ে যায়। কারণ এক্ষেত্রে আচমকা অ্যাক্সেলারেশন বাড়ানো ও ব্রেক কষার প্রয়োজন পড়ে না। ধীরেসুস্থে চালালে অবশ্য মাইলেজ বাড়ার পাশাপাশি গাড়ি ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনাও কমে।

বাড়তি ওজন কমান

গাড়ির মাইলেজ বাড়াতে চাইলে বাড়তি ওজন কমান। এর মধ্যে হতে পারে কোন ভারী সরঞ্জাম, অতিরিক্ত পোশাক-আশাক অথবা খেলার জিনিসপত্র। রাস্তায় চলার সময় যেসব জিনিসপত্রের প্রয়োজন নেই, সেগুলি যতটা সম্ভব কম নেওয়ার চেষ্টা করুন। গাড়ির ওজন কমলে শক্তির খরচ কম হবে। ফলে জ্বালানির খরচও কমবে।

নিয়মিত মেনটেনেন্স করান

এ কথা আমরা সকলেই জানি যে, গাড়ি নিয়মিত মেইনটেনেন্স করালে মাইলেজ ভালো দেয়। তাই কোম্পানির পরামর্শ মত নির্দিষ্ট সময় অন্তর গাড়ি অবশ্যই মেইনটেনেন্স করান। পাশাপাশি ইঞ্জিন অয়েল, এয়ার ফিল্টার পরিবর্তন করতে ভুলবেন না। স্বচ্ছ এয়ার ফিল্টার এবং সঠিকভাবে লুব্রিকেটেড ইঞ্জিন গাড়ির মাইলেজ বাড়াতে বিশেষভাবে সাহায্য করে।

গাড়িতে এসি ব্যবহারে মাথা খাটান

একথা অস্বীকার করার জো নেই যে, গ্রীষ্মের দাবদাহে গাড়িতে এসি না চালালে টেকা দায়। কিন্তু একথা জানেন কি, এয়ার কন্ডিশন গাড়ির ইঞ্জিনের ওপর চাপ সৃষ্টি করে? ফলে জ্বালানি পোড়ে বেশি। মাইলেজ ভালো পেতে এয়ার কন্ডিশন ব্যবহারের ক্ষেত্রে বুদ্ধি প্রয়োগ করুন। বিকল্প পথ হিসাবে জানালা খোলা রাখা অথবা ভেন্টিলেশন সিস্টেমের ব্যবহার করলে খানিক স্বস্তি মিলবে।