Tata Punch EV: এক চার্জে ছুটবে 421 কিমি, 10.99 লাখেই দমদার ইলেকট্রিক SUV আনল টাটা

Tata Motors একের পর এক গাড়ির বৈদ্যুতিক ভার্সন লঞ্চ করে ক্রেতাদের চমকে দিচ্ছে। Nexon, Tigor, ও Tiago-এর পর ইলেকট্রিক অবতারে আজ অফিশিয়ালি লঞ্চ হল Punch EV। অর্থাৎ টাটার চতুর্থ ব্যাটারি চালিত মডেল এটি। দেশের সবচেয়ে সস্তা ইলেকট্রিক SUV হিসাবে এসেছে এই গাড়ি। দাম ১০.৯৯ লক্ষ টাকা থেকে শুরু করে ১৪.৪৯ লক্ষ টাকা (এক্স-শোরুম) পর্যন্ত গিয়েছে। ভ্যারিয়েন্ট চারটে – Smart, Adventure, Empowered ও Empowered+।

লঞ্চের আগেই পাঞ্চ ইভি-এর বুকিং চালু করেছিল কোম্পানি। এর জন্য লাগছে ২১,০০০ টাকা। টাটা জানিয়েছে, সামনের মাস অর্থাৎ ফেব্রুয়ারি থেকেই গাড়িটির ডেলিভারি শুরু করবে। অবগতির জন্য জানিয়ে রাখি, Punch EV হচ্ছে সংস্থার ইলেকট্রিক, আইসিই ও সিএনজি অপশনে উপলব্ধ দ্বিতীয় মডেল। এতদিন একমাত্র Tiago গাড়িটি আইসিই, সিএনজি ও ব্যাটারি ভ্যারিয়েন্টে উপলব্ধ ছিল। সেই তালিকায় এবার নাম লেখালো Tata Punch EV। আবার Nexon-এর পর Punch বর্তমানে সংস্থার দ্বিতীয় ইলেকট্রিক SUV।

আকার আকৃতির দিক থেকে আইসিই ও সিএনজি ভার্সনের সাথে সমান রয়েছে Punch EV। ডিজাইনের প্রসঙ্গে বললে Nexon EV Facelift-এর মতোই সামনে দেওয়া হয়েছে স্লিম এলইডি হেডলাইট, ক্লোজ গ্রিল এবং নতুন ১৬ ইঞ্চি অ্যালয় ডিজাইন। এটিই দেশের প্রথম ইলেকট্রিক গাড়ি, যার বনেটের নিচে রয়েছে ফ্রাঙ্ক ও ১৪ লিটার স্টোরেজ স্পেস। এর সাথেই রয়েছে ৩৬৬ লিটারের অতিরিক্ত বুট স্পেস।

Tata Punch EV : ব্যাটারি রেঞ্জ ও পারফরম্যান্স

টাটা তাদের পাঞ্চ ইভি দুই ধরনের ব্যাটারির বিকল্পে হাজির করেছে – মিড রেঞ্জ ও লং রেঞ্জ। প্রথমটিতে রয়েছে ২৫ কিলোওয়াট আওয়ার ব্যাটারি এবং দ্বিতীয়টিতে ৩৫ কিলোওয়াট আওয়ার ব্যাটারি প্যাক। গাড়িটি সংস্থার দ্বিতীয় প্রজন্মের পিওর ইভি প্ল্যাটফর্ম Acti.EV-এর উপর ভিত্তি করে এসেছে। উচ্চ ক্ষমতার সেল রেঞ্জ ১০ শতাংশ পর্যন্ত বাড়াতে সহায়তা করবে।

টাটার দাবি, Punch EV mid-range মডেলটি সম্পূর্ণ চার্জে ৩১৫ কিলোমিটার পথ দৌড়াবে। যেখানে ৩৫ কিলোওয়াট আওয়ার ব্যাটারি মডেলটি ৪২১ কিলোমিটার রেঞ্জ প্রদান করবে। দুই ধরনের চার্জিং অপশন মিলবে – ৭.২ কিলোওয়াট ফাস্ট হোম চার্জার এবং ৫০ কিলোওয়াট ডিসি ফাস্ট চার্জার। দ্বিতীয়টিতে ১০-৮০% চার্জ এক ঘন্টায় হয়ে যাবে বলে দাবি সংস্থার।

মিড রেঞ্জ মডেলে উপস্থিত ইলেকট্রিক মোটর থেকে উৎপন্ন হবে ৮০ বিএইচপি এবং ১১৪ এনএম টর্ক। অন্যদিকে বৃহত্তর ভার্সনের আউটপুট ১২০ বিএইচপি এবং ১৯০ এনএম। ইলেকট্রিক এসইউভি’টি ০-১০০ কিমি/ঘন্টার গতি ৯.৫ সেকেন্ডে তুলবে। প্রতি ঘন্টায় গাড়িটির সর্বোচ্চ গতিবেগ ১৪০ কিলোমিটার।

Tata Punch EV : ফিচার্স ও কালার

Punch EV-তে এর আইসিই ও সিএনজি ভার্সনের তুলনায় অধিক ফিচার রয়েছে। এতে উল্লেখযোগ্য বৈশিষ্ট্যের মধ্যে উপস্থিত ভেন্টিলেটেড ফ্রন্ট রো, লেদারেট সিট, এয়ার পিউরিফায়ার, ১০.২৫ ইঞ্চি টাচস্ক্রিন ইনফোটেনমেন্ট সিস্টেম এবং সমান মাপের ডিজিটাল ইন্সট্রুমেন্ট ক্লাস্টার। এছাড়া রয়েছে ওয়্যারলেস চার্জিং, ওয়্যারলেস অ্যান্ড্রয়েড অটো ও অ্যাপেল কারপ্লে, ৩৬০ ডিগ্রি ক্যামেরা ও ব্লাইন্ড স্পট মনিটরিং।

সুরক্ষা জনিত বৈশিষ্ট্যের মধ্যে Punch EV-তে রয়েছে ছয়টি এয়ার ব্যাগ, অটো হোল্ড ফাংশন সহ ইলেকট্রনিক পার্কিং ব্রেক ও ইলেকট্রিক সানরুফ (অপশনাল)। গাড়িটি ছয়টি রঙের মধ্যে বেছে নেওয়া যাবে – প্রিস্টিন হোয়াইট, ডেটোনা গ্রে, ফিয়ারলেস রেড, সিউইড গ্রীন এবং এম্পাওয়ারড অক্সাইড। প্রতিটি কালার ব্ল্যাকআউট রুফ/ডুয়েলটোন এক্সটেরিয়ার থিমে অফার করা হয়েছে।