Royal Enfield Shotgun: রাজকীয় বাইক লঞ্চ করে চমকে দিল রয়্যাল এনফিল্ড, ছবি দেখলে প্রেমে পড়বেন!

দীর্ঘ প্রতীক্ষার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে ভারতের বাজারে লঞ্চ হল Royal Enfield Shotgun 650। এই নতুন মোটরসাইকেলটির দাম ৩,৫৯,৪৩০ লাখ টাকা (এক্স-শোরুম) ধার্য করা হয়েছে। মোট চার ভ্যারিয়েন্টে এসেছে এটি। বলাবাহুল্য এই নতুন মডেলটি মাঝারি ওজনের বাইকের বাজারে রয়্যাল এনফিল্ডের (Royal Enfield) স্থান অধিক পাকাপোক্ত করেছে। ৬৫০ সিসি ইঞ্জিন সেগমেন্টে এটি সংস্থার চতুর্থ মডেল। চলুন শটগান ৬৫০ সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাক।

উল্লেখ্য, EICMA 2021-এ SG650 কনসেপ্ট মডেলের প্রদর্শন করেছিল রয়্যাল এনফিল্ড। গত বছর গোয়াতে অনুষ্ঠিত মোটোভার্স Shotgun 650 Motoverse Edition-এর লঞ্চ করে সংস্থা। এটি আদতে SG650 কনসেপ্টের প্রোডাকশন ভার্সন। আর এবারে বাইকটির স্ট্যান্ডার্ড ভার্সন শটগান ৬৫০ হাজির করল কোম্পানি।

Royal Enfield Shotgun 650: ডিজাইন

Royal Enfield Shotgun 650 সংস্থার ফ্ল্যাগশিপ ক্রুজার Super Meteor 650-এর উপর ভিত্তি করে এলেও এদের মধ্যে ডিজাইনগত দিক থেকে কিছুটা ফারাক বর্তমান। নতুন মোটরসাইকেলটিতে উপলব্ধ ১৩.৮ লিটারের ফুয়েল ট্যাঙ্ক, যার দু’পাশে বিভিন্ন কারুকার্য করা হয়েছে। ফলে দর্শনে নতুন মাত্রা যোগ হয়েছে। হেড ল্যাম্পের উপরে অ্যালুমিনিয়াম কাউল উপস্থিত। রেট্রো থিমের রয়্যাল এনফিল্ড শটগানে আধুনিকতার সাথেই প্রিমিয়াম ভাইবের সহাবস্থান পড়েছে। এটি প্রধানত একটি ক্রুজার বাইক। কিন্তু মজার বিষয়, পেছনের সিটটি খুলে নিলেই ববার বাইকে পরিণত হবে।

Royal Enfield Shotgun 650: হুইল, ব্রেক ও সাসপেনশন

Super Meteor 650-এর বহু যন্ত্রাংশ Shotgun 650-এ ব্যবহার করা হয়েছে। যেমন হেডলাইট, টেল লাইট ও ইন্ডিকেটর। এমনকি মডেল দুটির ইন্সট্রুমেন্টেশন, সুইচগিয়ার কিউব, অ্যাডজাস্টেবল ব্রেক এবং ক্লাচ লিভার-ও সমান। তুলনামূলক ছোট ১৮ ইঞ্চির ফ্রন্ট এবং ১৭ ইঞ্চির রিয়ার হইলে ছুটবে শটগান ৬৫০।

সামনের সাসপেনশনের দৈর্ঘ্য কিছু না কমানো হয়েছে কিন্তু পেছনের ট্রাভেলের মাপ আগের মতই। আবার টুইন শক ইউনিটের দৈর্ঘ্য বেড়েছে। Super Meteor 650-এর ব্রেকিংয়ের যাবতীয় যন্ত্রাংশ Shotgun 650-এও বর্তমান।

Royal Enfield Shotgun 650: পাওয়ারট্রেন

Royal Enfield Shotgun 650 রাস্তায় রাজকীয় মেজাজে ছুটে চলার জন্য এতে দেওয়া হয়েছে একটি ৬৪৮সিসি, এয়ার অয়েল কুল্ড ইঞ্জিন এবং এর সাথে সামঞ্জস্য রেখে ৬-গতির গিয়ারবক্স। এটি থেকে সর্বোচ্চ ৪৬ বিএইচপি শক্তি এবং ৫২ এনএম টর্ক উৎপন্ন হবে। প্রতি লিটার পেট্রোলে মোটরসাইকেলটি ২২ কিলোমিটার পথ ছুটবে বলে দাবি করা হয়েছে।