Vivo T3 5G বাজেটের মধ্যে দেবে দুর্দান্ত ক্যামেরা সহ বড় ব্যাটারি ও ডিসপ্লে, পেল BIS থেকে অনুমোদন

Vivo T3 5G গত বছর এপ্রিল মাসে আগত ভিভো টি২ ৫জি (Vivo T2 5G) মডেলের সাক্সেসর ভার্সন হিসাবে আত্মপ্রকাশ করবে। তাই সম্ভাবনা আছে পূর্বসূরির মতো উত্তরসূরিকেও বছরের প্রথম কোয়ার্টারের শেষ ভাগে উন্মোচন করবে ভিভো

Vivo খুব শীঘ্রই ভারতের বাজারে তাদের জনপ্রিয় T-সিরিজের অধীনে একটি নতুন হ্যান্ডসেট লঞ্চ করতে চলেছে। আসন্ন মডেলটি Vivo T3 5G নামে আসবে। এই ফোন হালফিলে ‘ব্যুরো অফ ইন্ডিয়ান স্ট্যান্ডার্ডস’ (BIS) সার্টিফিকেশন সাইট দ্বারা অনুমোদিত হয়েছে, যার লিস্টিং থেকে জানা গেছে, ডিভাইসটি V2334 মডেল নম্বর সহ আসবে।

BIS সার্টিফিকেশন সাইটে ভিভো টি৩ ৫জি স্মার্টফোনের কোনো স্পেসিফিকেশন দেওয়া হয়নি। তবে এই সাইট থেকে এর মডেল নম্বর সামনে এসেছে । পাশাপাশি এই ফোন লেটেস্ট ব্লুটুথ ৫.৩ কানেক্টিভিটির সাপোর্ট সহ লঞ্চ হবে বলে জানা গেছে।

উল্লেখ্য, ভিভো টি৩ ৫জি গত বছর এপ্রিল মাসে আগত ভিভো টি২ ৫জি (Vivo T2 5G) মডেলের সাক্সেসর ভার্সন হিসাবে আত্মপ্রকাশ করবে। তাই সম্ভাবনা আছে পূর্বসূরির মতো উত্তরসূরিকেও বছরের প্রথম কোয়ার্টারের শেষ ভাগে উন্মোচন করবে ভিভো। এছাড়া একই সিরিজের অন্তর্গত হওয়ায় উক্ত হ্যান্ডসেট দুটির মধ্যে ফিচারগত সদৃশ্যতা থাকলেও থাকতে পারে। তাই চলুন ভিভো টি২ ৫জি ফোনের বিশেষত্ব দেখে নেওয়া যাক…

Vivo T2 5G এর স্পেসিফিকেশন ও ফিচার

Vivo T2 5G স্মার্টফোনে রয়েছে ৬.৩৮-ইঞ্চির ফুল এইচডি প্লাস (২৪০০×১০৮০ পিক্সেল) AMOLED ডিসপ্লে। এই ডিসপ্লের ডিজাইন ওয়াটারড্রপ নচ স্টাইলের এবং এটি ৯০ হার্টজ রিফ্রেশ রেট ও ১,৩০০ নিট পিক ব্রাইটনেস সাপোর্ট করে। এতে কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৬৯৫ প্রসেসর এবং অ্যাড্রেন ৬১৯ জিপিইউ ব্যবহার করা হয়েছে। ফোনটি লেটেস্ট অ্যান্ড্রয়েড ১৩ ভিত্তিক ফানটাচ ওএস ১৩ কাস্টম স্কিনে রান করে। স্টোরেজ হিসাবে ৮ জিবি পর্যন্ত র‍্যাম এবং ১২৮ জিবি মেমরি পাওয়া যাবে। যদিও এই হ্যান্ডসেট অতিরিক্তভাবে আরো ৩ জিবি পর্যন্ত এক্সটেন্ডেড র‍্যাম ফিচারও সাপোর্ট করে।

ফটো ও ভিডিওগ্রাফির জন্য Vivo T2 5G স্মার্টফোনের ব্যাক প্যানেলে ডুয়াল ক্যামেরা সেটআপ বর্তমান। এগুলি হল – OIS ও EIS প্রযুক্ত সহ ৬৪ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি সেন্সর এবং ২ মেগাপিক্সেল বোকেহ সেকেন্ডারি সেন্সর। এদিকে ডিভাইসের সামনে ১৬ মেগাপিক্সেলের সেলফি ক্যামেরা উপস্থিত। তদুপরি কানেক্টিভিটি বিকল্প হিসাবে – ৫জি, ডুয়াল-ব্যান্ড ওয়াই-ফাই, ব্লুটুথ, জিপিএস এবং ইউএসবি টাইপ-সি পোর্ট অন্তর্ভুক্ত আছে। পাওয়ার ব্যাকআপের জন্য এতে ৪৪ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং প্রযুক্তি সমর্থিত ৪,৫০০ এমএএইচ ক্যাপাসিটির ব্যাটারি দেওয়া হয়েছে। আর সিকিউরিটি ফিচার হিসাবে ইন-ডিসপ্লে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর মিলবে।