স্মার্টফোন হাতছাড়া হলেই মাসে 8 লাখ টাকা আয়! চরম সুযোগ দিচ্ছে মার্কিনি সংস্থা, ব্যাপার কী?

Digital Detox: সর্বক্ষণের সাথী স্মার্টফোনকে বিদায় দিলেই এবার পাবেন লাখ লাখ টাকা, তাও আবার বিনা পরিশ্রমে!

এখনকার সময়ে স্মার্টফোন (Smartphone) জিনিসটি আমাদের কাছে প্রাণভোমরার চেয়ে কম কিছু নয়। বলতে গেলে, এক মিনিট নিশ্বাস বন্ধ করে হয়তো থাকা যাবে, কিন্তু ওই অতি অল্প সময়ের জন্যও ফোন হাতছাড়া করাটা অনেকের কাছেই বেশ চাপের। কাজের প্রয়োজনে ব্যবহারের পাশাপাশি আসক্তির একটা উৎস হয়ে দাঁড়িয়েছে এই খুদে যন্ত্রটি। যদিও অনেকেই আবার স্মার্টফোনের ক্রমাগত নোটিফিকেশন থেকে বিরতি নিয়ে প্রাণখোলাভাবে থাকতে চান। সেক্ষেত্রে আপনার ফোন ছেড়ে থাকতে ইচ্ছে হোক বা না হোক, আজকের যুগে দাঁড়িয়ে কোনোভাবে যদি আপনি এক মাসের জন্য এই অসাধ্য সাধন করতে পারেন তাহলে কিন্তু আপনার পকেটে আসতে পারে ১০,০০০ ডলার মানে প্রায় ৮ লক্ষের বেশি টাকা! হ্যাঁ, ঠিকই পড়েছেন, আর এই টাকা আপনাকে দেবে Siggi – একটি আইসল্যান্ডিক ইয়োগার্ট তথা দই প্রস্তুতকারী সংস্থা।

Siggi Digital Detox: হঠাৎ কেন এমন পুরষ্কার দিচ্ছে সংস্থাটি?

জানা গিয়েছে যে, ওই সংস্থাটি এই বিশেষ ঘোষণা করেছে আমেরিকার ‘ড্রাই জানুয়ারী’ (Dry January) ক্যাম্পেইন থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে, যা মাদকাসক্তি কাটানোর জন্য আয়োজিত হয়েছিল। সেক্ষেত্রে সিগি ব্র্যান্ডের এই প্রোগ্রামের নাম দেওয়া হয়েছে ‘ডিজিটাল ডিটক্স’, যেখানে ১০ জন ভাগ্যবান অংশগ্রহণকারী ১০,০০০ ডলার পুরষ্কার পেয়ে যাবেন। তবে এর জন্য মানতে হবে বড় শর্ত – নির্বাচিত অংশগ্রহণকারীদের তাদের স্মার্টফোনগুলিকে কোম্পানি প্রদত্ত একটি বাক্সে সংরক্ষণের জন্য রাখতে হবে এবং এক মাস সেটি ছেড়ে জীবনযাপন করতে হবে, ঠিক এক দশক আগের মতো।

উল্লেখ্য, যে-কেউই এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে পারবেন, তবে বয়েস হতে হবে নূন্যতম ১৮ বছর। আর, নিজের ডিজিটাল জীবন থেকে বিরতি নিতে এবং লাখ লাখ টাকা বিনা পরিশ্রমে পেতে হলে আগামী ৩১শে জানুয়ারির মধ্যে কোম্পানির ওয়েবসাইটে আবেদন করতে হবে। এছাড়াও আপনি এই প্রোগ্রামের শরিক হলে এক মাস যে একেবারে ফোন কল করতে পারবেননা তা নয়, জরুরী অবস্থার জন্য এক্ষেত্রে প্রিপেইড সিম কার্ডসহ একটি রেট্রো ফ্লিপ ফোন দেওয়া হবে। এমনকি এই ‘দুঃসাহসিক’ কাজের জন্য সিগি তিন মাস দইয়ের জোগানও দেবে।

আসলে স্মার্টফোনের ওপর ব্যাপক নির্ভরশীলতার বিষয়টির প্রভাব এড়াতেই এই পদক্ষেপ নিয়েছে সংস্থাটি। তাদের বিশ্বাস বর্তমানে জীবনের সবচেয়ে বড় বিভ্রান্তি হল ফোন, যা আমাদের নিয়ন্ত্রণ করছে৷ আদতে, গড়ে একজন মানুষ প্রতিদিন স্মার্টফোনে ৫.৪ ঘন্টা ব্যয় করে বলে কোম্পানি তার ওয়েবসাইটে দাবি করেছে৷