আইফোনের কেস দিয়ে যাত্রা শুরু Tata Electronics এর, ভারতে জমিয়ে ব্যবসা করতে তৈরি Apple

ভারতের হোসুরের নতুন প্ল্যান্টে আইফোন-কেসিং উৎপাদন শীঘ্রই চালু করতে চলেছে টাটা ইলেকট্রনিক্স

অতিসম্প্রতি টাটা ইলেকট্রনিক্স (Tata Electronics) উইস্ট্রনের আইফোন অ্যাসেম্বলি প্ল্যান্ট অধিগ্রহণ করেছে। এই প্ল্যান্টে আইফোন ছাড়াও Apple এর বিভিন্ন অ্যাক্সেসরিজ তৈরি করা হবে। শুরুতে এই প্ল্যান্টে অ্যাক্সেসরিজ তৈরি করতে চলেছে তারা। পাশাপাশি নয়া রিপোর্ট অনুযায়ী, ভারতের হোসুরের নতুন প্ল্যান্টে আইফোন-কেসিং উৎপাদন শীঘ্রই চালু করতে চলেছে টাটা ইলেকট্রনিক্স।

দ্য ইকোনমিকস টাইমস-এর একটি রিপোর্ট অনুসারে, ইতিমধ্যেই এই প্রকল্পের জন্য ৫,০০০ কোটি টাকা বিনিয়োগ করেছে এই সংস্থাটি। আর তারা আশা করছে, বর্তমান প্ল্যান্টের চেয়ে হোসুরেতে দ্বিগুণ পরিমাণে উৎপাদন হতে পারে। এই নতুন প্ল্যান্টটি বর্তমানে ৫০০ একর জায়গা জুড়ে তৈরি করা হয়েছে এবং এখানে ১৫,০০০ জনেরও বেশি কর্মীও নিয়োগ করছে টাটা। সংস্থাটি দাবি করছে যে, খুব শীঘ্রই তারা এখানে ২৫,০০০ থেকে ২৮,০০০ কর্মসংস্থান তৈরি করতে পারবে।

প্রসঙ্গত, ইলেকট্রনিক্স বাজারে নিজেদের প্রভাব বিস্তারের জন্য সংস্থাটি তার নতুন প্ল্যান্টে এখন আইফোন অ্যাক্সেসরিজ তৈরি করা শুরু করলেও, ভবিষ্যতে তারা এর সাথে আরো অন্যান্য সংস্থার জন্য হাই-এন্ড ফোন উৎপাদন করতেও পারে।

উল্লেখ্য, কর্নাটকে স্থিত উইস্ট্রনের অ্যাসেম্বলিং প্ল্যান্ট অধিগ্রহণ করার পর টাটা গ্রুপ তাদের ম্যানুফ্যাকচারিং বৃদ্ধি এবং সম্প্রসারণের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে। আর এই পদক্ষেপের পর সংস্থাটি ভারতের প্রথম আইফোন প্রস্তুতকারক সংস্থা হয়ে উঠেছে।

যেহেতু, টাটা বর্তমানে হাই-এন্ড ইলেকট্রনিক্স প্রোডাক্ট উৎপাদনের জন্য সম্পূর্ণ প্রস্তুত, সেজন্য Apple তাদের স্মার্টফোন উৎপাদনকে ভারতে স্থানান্তরিত করতে চায়।

জুন-সেপ্টেম্বর ত্রৈমাসিকের পর Apple সিইও টিম কুক, ভারতে তাদের প্রাপ্ত রাজস্বের পরিমাণ দেখে, ব্যবসার ক্ষেত্রে এদেশের গুরুত্ব সকলের সামনে তুলে ধরেছে। এরপরই সংস্থাটি ভারতকে তাদের প্রধান ম্যানুফ্যাকচারিং ইউনিট হিসেবে প্রতিষ্ঠা করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে ফেলেছে।

কাউন্টার পয়েন্টের একটি সাম্প্রতিক রিপোর্টে বলা হয়েছে, জুন-সেপ্টেম্বর ত্রৈমাসিকে Apple এর বিক্রি আরো বেড়েছে। ২০২৩ সালের প্রথম ত্রৈমাসিকে ভারতে সংস্থার শিপমেন্ট ২.৫ মিলিয়ন ইউনিট অতিক্রম করে একটি নতুন রেকর্ড স্থাপন করেছে।